কেজরিওয়ালদের
অবস্থান অব্যাহত

নিজস্ব প্রতিনিধি   ১৪ই জুন , ২০১৮

নয়াদিল্লি, ১৩ই জুন— দিল্লির লেফটেন্যান্ট গভর্নরের বাসভবনে মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল ও তাঁর মন্ত্রীদের লাগাতার অবস্থান বুধবার তৃতীয় দিনে পড়ল। রাজধানী দিল্লিতে মুখ্যমন্ত্রী বনাম লেফটেন্যান্ট গভর্নরের এই লড়াই রাজনৈতিক মহলে চাঞ্চল্য তৈরি করেছে। মুখ্যমন্ত্রী ও তাঁর মন্ত্রীরা দিল্লিতে আই এ এস অফিসারদের লাগাতার কর্মবিরতির প্রতিবাদ জানাতে এই অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন। অবস্থানে ওই আই এ এস অফিসারদের কর্মসূচি প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। এদিকে, ওই কর্মবিরতির কর্মসূচিকে রীতিমতো বিবৃতি দিয়ে সমর্থন জানিয়েছেন গভর্নর। এতেই মুখ্যমন্ত্রী বনাম গভর্নরের সংঘাত তীব্র হয়েছে। একারণেই গভর্নরের বাসভবনে এই লাগাতার অবস্থানের কর্মসূচি নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। এই কর্মসূচিকে অবশ্য বিরোধিতা করছে কংগ্রেস এবং বি জে পি উভয়েই।

দিল্লিতে গভর্নর অনিল বাইজলের বাসভবন রাজনিবাসে মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল ও তাঁর মন্ত্রীদের সারাদিন সারারাত লাগাতার অবস্থান চলছে। কেজরিওয়ালের সঙ্গে অবস্থানে রয়েছেন উপমুখ্যমন্ত্রী মণীশ সিসোদিয়া, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সত্যেন্দ্র জৈন এবং শ্রমমন্ত্রী গোপাল রাই। এদিন আপ কর্মীরাও এই অবস্থান কর্মসূচিতে অংশ নেন। এদিন অবস্থান বিক্ষোভে সমর্থন জানিয়ে বক্তব্য রাখেন প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী যশবন্ত সিনহা। তিনি সম্প্রতি বি জে পি থেকে ইস্তফা দিয়েছেন। তিনি বলেন, দিল্লি সরকার পরিচালনার ক্ষেত্রে একটা সমস্যা দেখা দিয়েছে। তা মেটানোর কোনও উদ্যোগ কেন্দ্রের তরফে দেখা যাচ্ছে না। এই আমলে বিরোধী সরকারকে বিব্রত করার উদ্যোগ চলছে।

এদিকে গত ফেব্রুয়ারি থেকে আই এ এস-দের সঙ্গে সংঘাত শুরু হয় মোদী সরকারের। রাজ্যের মুখ্যসচিব অংশু প্রকাশকে অপমানিত করা হয়েছে এই অভিযোগ জানিয়ে গত ফেব্রুয়ারি থেকে রাজ্য সরকারের আই এ এস অফিসাররা সরকারের কাজে কোনও সহযোগিতা করছে না। মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, অফিসাররা সহযোগিতা না করায় বহু জনপ্রকল্পের কাজ আটকে রয়েছে। ঘরে ঘরে রেশন পৌঁছে দেওয়ার প্রকল্প এতে চালু করা যায়নি। এদিকে মুখ্যমন্ত্রীর এই বক্তব্যের বিরোধিতা করে গভর্নর বাইজল তার লিখিত বিবৃতিতে জানিয়ে দেন, আই এ এস অফিসাররা তাঁদের নিয়মমতো কাজ করছেন। আসলে সমস্যা করছেন মুখ্যমন্ত্রী কেজরিওয়াল নিজে। সরকারে প্রশাসনের অফিসারদের এভাবে গভর্নর বাইজল উসকে দেওয়ায় আরও জটিল হয়েছে পরিস্থিতি। এদিকে, বি জে পি এই জটিলতার জন্য মুখ্যমন্ত্রী কেজরিওয়ালকে দায়ী করেছেন। বি জে পি মুখ্যমন্ত্রীর আবস্থান প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে দিল্লিতে মিছিল করেছে। কংগ্রেস নেত্রী শীলা দীক্ষিত কেজরিওয়ালের তীব্র সমালোচনা করে বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী অহেতুক অবস্থান করছেন।

Featured Posts

Advertisement