ন্যূনতম ১৮হাজার টাকা
মজুরির দাবি পানীয় জল
সরবরাহ কর্মীদের

নিজস্ব সংবাদদাতা   ১২ই জুলাই , ২০১৮

কোচবিহার, ১১ই জুলাই – সমকাজে সমবেতন, মাসিক ন্যূনতম ১৮হাজার টাকা মজুরি সুনিশ্চিত করার দাবি জানালেন পানীয় জল সরবরাহকারী শ্রমিক কর্মচারীরা। পানীয় জল পাম্প অপারেটর কর্মী ইউনিয়ন-এর নর্দার্ন মেকানিক্যাল ডিভিসন কমিটির উদ্যোগে বুধবার কোচবিহার ক্লাবে এক সভা থেকে এই দাবি তোলা হয়।

প্রতিমাসে সময়মতো বেতন পান না তাঁরা। যাও বা পান তাও যৎসামান্য। কেউ কেউ ২০বছর পর্যন্ত নিষ্ঠার সাথে পানীয় জল সরবরাহের কাজ করে চলেছেন জেলার গ্রামীণ জল উত্তোলন কেন্দ্রগুলিতে। শুধু গ্রামীণ এলাকাগুলি নয়, একইভাবে শহরাঞ্চলেও নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করে চলেছেন তাঁরা দিনে ৩৩৪ টাকা মজুরির বিনিময়ে ।

কোচবিহার, আলিপুরদুয়ার, জলপাইগুড়ি ও দার্জিলিং জেলার সামান্য অংশের এই পানীয় জল সরবরাহকারী শ্রমিক কর্মীদের নিয়ে গঠিত হয়েছে পানীয় জল পাম্প অপারেটর কর্মী ইউনিয়ন। এই সংগঠনের উদ্যোগে এদিনের সভায় উপস্থিত ছিলেন প্রায় ৩০০ জন শ্রমিক কর্মী। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক গণেশ নন্দী, সভাপতি প্রদীপ ঘোষ এদিন সভায় বলেন, সরকার নির্ধারিত মাসিক মজুরি ১৮ হাজার টাকা এবং সমকাজে সমবেতনের ব্যবস্থা করা না হলে তারা অবিলম্বে বৃহত্তর আন্দোলনে শামিল হবেন।

নেতৃবৃন্দ বলেন,সম্প্রতি জেলা পরিষদের হাত থেকে এই পানীয় জল সরবরাহের সমস্ত দায়িত্ব তুলে দেওয়া হয়েছে সংশ্লিষ্ট গ্রাম পঞ্চায়েতের হাতে। আর এর ফলে প্রতিনিয়ত সমস্যার মুখোমুখি হতে হচ্ছে পাম্প ও ভাল্ব অপারেটরদের। পানীয় জল সরবরাহের ক্ষেত্রে যা যা পরিকাঠামোর প্রয়োজন, তার কোনোটাই গ্রাম পঞ্চায়েতগুলির নেই। এমনকি অনেক গ্রাম পঞ্চায়েত পাম্প বিদ্যুতের বিল পর্যন্ত মেটাতে পারে না। জল সরবরাহকারীদের মাসিক বেতন দিতেও সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন তারা। ফলে গভীর সংকটে পড়তে হচ্ছে শ্রমিক কর্মীদের। এই পরিস্থিতিতে অবিলম্বে সরকারকে এই সিদ্ধান্ত বদলের আবেদন জানান নেতৃবৃন্দ।

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement