বিশ্ববিদ্যালয় কর্মীদের
অবস্থান, বিক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিনিধি   ১২ই জুলাই , ২০১৮

কলকাতা, ১১ই জুলাই— কর্মচারীদের পদোন্নতির সুযোগ দেওয়া, মৃত পরিবারের একজনকে চাকরি এবং কর্মচারী শিবাজী দাসের সাসপেনসন তুলে নেওয়ার দাবিতে অবস্থান, বিক্ষোভে শামিল হয়েছেন কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মচারীরা। গত মঙ্গলবার থেকে এই অবস্থান শুরু হয়েছে। চলবে শুক্রবার পর্যন্ত। ক্যালকাটা ইউনিভার্সিটি এমপ্লয়িজ অ্যাসোসিয়েশনের ডাকা এই অবস্থান চলছে দুপুর ১টা থেকে ৪টে পর্যন্ত। তাঁদের এই অবস্থানকে সমর্থন জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকারাও। এদিকে কর্মচারীদের এই দাবিগুলি এক সপ্তাহের মধ্যে সমাধানের আশ্বাস দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অবস্থান তুলে নেওয়ার আরজি জানিয়েছেন। এব্যাপারে বৃহস্পতিবার সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম বিভাগের দ্বিতীয় পত্রের পরীক্ষা থাকলেও তৃতীয় পত্রের প্রশ্নপত্র চলে আসায় সেদিনের পরীক্ষা বাতিল হয়েছিল। ওই প্রশ্নপত্র বিভ্রাটে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ পরীক্ষা নিয়ামক, ডেপুটি পরীক্ষা নিয়ামক ও শিবাজী দাসকে শোকজ করে। শোকজ হওয়া তিনজনের মধ্যে শুধুমাত্র শিবাজী দাসকে সাসপেন্ড করা হয়। এ নিয়ে ক্যালকাটা ইউনিভার্সিটি এমপ্লয়িজ অ্যাসোসিয়েশনের দাবি, ব্যক্তি শিবাজী দাসকে এককভাবে কাঠগোড়ায় না তুলে ব্যবস্থাটিকেই ত্রুটি হিসাবে ধরা হোক এবং তাঁর সাসপেনশন প্রত্যাহার করা হোক। এই দাবিকে সামনে রেখে অবস্থান যেমন চলছে, তেমনি কর্মচারীদের পদোন্নতিও এই অবস্থানের অন্যতম দাবি।

অ্যাসোসিয়েশনের বক্তব্য, স্কুল সার্ভিস কমিশনের মাধ্যমে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রুপ-সি ও গ্রুপ-ডি পদে নিয়োগ করা হচ্ছে। এতে সমিতির আপত্তি নেই। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় গ্রুপ-ডি পদে এমন অনেক কর্মচারী রয়েছেন যাঁরা পদোন্নতি পেয়ে গ্রুপ-সি পদে যাওয়ার যোগ্য। এঁরা পদোন্নতির সুযোগ কেন পাবেন না? তাছাড়া কর্মরত অবস্থায় মৃত ব্যক্তির একজনের চাকরি পাওয়ার অধিকার রয়েছে। এ ক্ষেত্রে দীর্ঘদিন নিয়োগ হচ্ছে না। কর্মচারীদের এইসব স্বার্থের জন্য এর আগেও বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও সিন্ডিকেটকে স্মারকলিপি দেওয়া হয়েছে। কিন্তু কোনও পদক্ষেপ কর্তৃপক্ষ নেয়নি। তাই আবারও অবস্থান শুরু হয়েছে দাবি আদায়কে জোরদার করার।

Featured Posts

Advertisement