বাজার হারিয়ে গঙ্গা তীরবর্তী
টালিভাটাগুলি বন্ধ হয়ে যাচ্ছে

নিজস্ব সংবাদদাতা   ১৩ই জুলাই , ২০১৮

বলাগড়, ১২ই জুলাই — হুগলী জেলার বলাগড় ব্লক একসময় পরিচিতি পেয়েছিল নৌ শিল্পের জন্য। তারপরে বিখ্যাত হয়ে ওঠে তার টালি শিল্পের জন্য। গুপ্তিপাড়া, সোমড়া, বলাগড়, জিরাট, খামারগাছী অঞ্চলে প্রায় ৬৫ থেকে ৭০ বছর আগে এই শিল্পের উত্থান। বাজার না থাকায় সেই বলাগড়েই এখন ভাটার সংখ্যা ৩২ থেকে কমতে কমতে চলছে মাত্র তিনটি। গঙ্গা তীরবর্তী হওয়ায় টালি তৈরির পলিমাটিও ছিল সহজলভ্য। গুণগত উন্নত হওয়ায় রাজ্যের বিভিন্ন জেলা ছাড়াও বিহার, উত্তরপ্রদেশ সহ বিভিন্ন রাজ্যে এই টালি রপ্তানি হতো। সরকারি সাহায্য থাকলেও অনুদান ভাটা অবধি এসে পৌঁছায় না, রোজকার মজুরি ১২০ থেকে ১৮০ টাকা। সঠিকভাবে সেইটুকু টাকাও সবসময় মেলে না। উন্নত প্রযুক্তির ভিড়ে চাহিদা কমছে টালির। শ্রমিকদের কথায় একমাত্র বিহারে টালি রপ্তানি হওয়ায় কোনরকমে ভাটা চলছে। অনিশ্চয় ভবিষ্যতের ভাবনায়, নতুন প্রজন্ম এই কাজের সাথে যুক্ত হতে চাইছে না। রাজ্যে কাজ না থাকায় চলে যাচ্ছে ভিনরাজ্যে। তাছাড়া সরকারি চুক্তিও মানা হচ্ছে না। তাই আগে ১০০ থেকে ১২০ জন করে প্রতিটি ভাটায় শ্রমিক সংখ্যা হলেও এখন তা ২৫ থেকে ৩০ জনে এসে দাঁড়িয়েছে।

হুগলী জেলা ইটভাটা ও টালি শ্রমিক ইউনিয়নের সম্পাদক মলয় সরকার জানান,বংশ পরম্পরায় এগিয়ে চলা এই শিল্প বন্ধ হওয়ার উপক্রম। জেলায় বর্তমানে ভাটার সংখ্যা ১০০ থেকে ৪টি তে এসে ঠেকেছে। সরকারি সাহায্য না পেলে প্রাচীন এই শিল্প কালের নিয়মে হারিয়ে যাবে।

Featured Posts

Advertisement