কুন্দুজে তালিবান হানায়
বহু সেনার মৃত্যুর শঙ্কা

সংবাদসংস্থা   ১৩ই জুলাই , ২০১৮

কাবুল, ১২ই জুলাই — আফগানিস্তানে রাতভর তালিবান হামলায় বহু সেনা ও পুলিশ কর্মীর মৃত্যুর আশঙ্কা করা হচ্ছে। সেনার একটি সূত্র অনুসারে, নিহত সেনার সংখ্যা ৪০ জনের বেশি। ‘নাইট ভিশন গগলস’ পরে সন্ত্রাসবাদীরা কুন্দুজ প্রদেশের দাশতে আর্চি জেলার একাধিক সেনা ঘাঁটি ও চৌকিতে হামলা করে। বৃহস্পতিবার কুন্দুজে সংবাদ সংস্থাকে এই কথা জানান, আফগানিস্তানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের মুখপাত্র মহম্মদ রাদমানিশ।

‘আমাদের অনেকের মৃত্যু হয়েছে। বেশ কয়েকজন তালিবান সন্ত্রাসবাদীও মারা গিয়েছে,’ বলেন রাদমানিশ। তিনি আরও বলেন, এপর্যন্ত ১০ থেকে ১৫জন সেনার দেহ মিলেছে। আহত অনেকে। কিন্তু আফগান নিরাপত্তা সংস্থাগুলির তরফে মৃতের সংখ্যা ৪০ জনের বেশি বলেই জানানো হয়েছে। বর্তমানে আকাশ ও জমিতে তালিবানের বিরুদ্ধে সেনা অভিযান জারি আছে।

কুন্দুজ ও তাকহর প্রদেশের মাঝে অবস্থিত একটি সেনা ঘাঁটি তালিবান দখল করেছে। বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত তালিবানের কবজাতেই সেনা ঘাঁটি ছিল। তাকহরের রাজ্যপালের মুখপাত্র সুনাতুল্লাহ টিমর সাংবাদিকদের এই কথা জানান। ‘এপর্যন্ত কোনও সেনার সাহায্য আসেনি। টুইটে হামলার দায় স্বীকার করেছে তালিবান। প্রদেশে একাধিক সেনা ঘাঁটি এবং অন্তত ১১টি চৌকি দখলের দাবি করা হয়েছে। মারা গিয়েছে ৬৫জন সাধারণ নাগরিক এবং বহু পুলিশকর্মী,’ জানান টিমর। অন্যদিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সেনা আধিকারিক বলেন, নাইট ভিশন গগলস ব্যবহার করার জন্য রাতে হামলা চালাতে তালিবানের সুবিধা হয়। এর আগে সেনা কেন্দ্রে হামলায় তালিবান অত্যাধুনিক হামভি সামরিক গাড়ি, অস্ত্রশস্ত্র, অন্যান্য সামগ্রী সঙ্গেই নাইট ভিশন গগলস লুট করে। বর্তমানে নানা এলাকায় সেনার ওপরে আক্রমণে সন্ত্রাসবাদীরা সেই সামরিক অস্ত্র ও সরঞ্জামেরই ব্যবহার করছে। অনেক সময়েই যার যোগ্য প্রতিরোধ গড়তে ব্যর্থ হচ্ছে আফগান সেনা। এমনকী ন্যাটো বাহিনীও।

২০৯ শাহীন আর্মি বাহিনীর মুখপাত্র মহম্মদ হানিফ রেজাই জানান, বুধবার বেশি রাতে শুরু হামলায় তালিবান সন্ত্রাসবাদীরা দুটি সেনা ঘাঁটি দখল করে। পরে সেনা পালটা হামলা করে একটি ঘাঁটি মুক্ত করে। পৃথক সামরিক হামলায় দেশের দক্ষিণ পূর্বের গজনি প্রদেশে বিমান হামলায় ২৪ জন সন্ত্রাসবাদীর মৃত্যু হয়েছে। আহত ১৭ জন। কাবুলে সেনাবাহিনীর তরফে প্রকাশিত বিবৃতিতে এই কথা জানানো হয়েছে। বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, হামলায় নাওয়া জেলায় বিমান হানায় ১৯৯৬-২০০১সাল পর্যন্ত তালিবান জামানায় প্রাক্তন মন্ত্রী মুল্লাহ আমীর খান মুত্তাকি, গজনির ছায়া রাজ্যপাল আহত।

আফগানিস্তানে এমন সময়ে তালিবান হামলা হয়েছে যখন ব্রাসেলসে ন্যাটোর বৈঠকে যোগ দিতে গিয়েছেন রাষ্ট্রপতি আশরাফ ঘানি। এই বৈঠকে সহযোগী দেশগুলি থেকে গত ১৭ বছর ধরে জারি সংঘর্ষের অবসানে অতিরিক্ত সাহায্যের আবেদন করতে পারেন ঘানি। আফগানিস্তানে প্রায় ১৪ হাজার ন্যাটো সেনা রয়েছে। ন্যাটোবাহিনীর সব থেকে বড় অংশ এই মার্কিন সেনারাই।

Featured Posts

Advertisement