রাধিকাপুর-কলকাতা সকালের
লিঙ্ক এক্সপ্রেস চালুর দাবিতে
২৫ থেকে লাগাতার অবরোধ

নিজস্ব সংবাদদাতা   ১১ই আগস্ট , ২০১৮

রায়গঞ্জ, ১০ই আগস্ট— রায়গঞ্জের সাংসদ মহম্মদ সেলিমের প্রচেষ্টায় রেলমন্ত্রকে দরবার করে রাধিকাপুর-কলকাতা সকালের তেভাগা লিঙ্ক এক্সপ্রেস চালু করার জন্য গত বছর ছাড়পত্র মিলেছে। ছাড়পত্র মিললেও কেন এখনো চালু হচ্ছে না? জবাব চাইছেন রায়গঞ্জের মানুষ। অনেক টালবাহানা হয়েছে, এবার দ্রুত চালু করা হোক রাধিকাপুর-কলকাতা সকালের তেভাগা লিঙ্ক এক্সপ্রেস। আর কোনও অজুহাত নয়। তা যদি না হয় স্তব্ধ হয়ে যাবে সমগ্র উত্তর দিনাজপুর জেলার রেল পরিষেবা। আগামী ২৫শে আগস্ট থেকে লাগাতার রেল অবরোধ করা হবে।

সি পি আই (এম) শহর এরিয়া কমিটির সম্পাদক তীর্থ দাস সাংবাদিকদের বলেন, রাধিকাপুর-কলকাতা দিনের ট্রেন ও রাধিকাপুর-বারসই ট্রেন বাসের দাবিসহ দক্ষিণ ভারতে চলাচলকারী সব ট্রেনের স্টপেজ আলুয়াবাড়ি (ইসলামপুর) এবং ডালখোলাতে দেওয়ার জন্য দীর্ঘদিন থেকেই সরব হয়েছেন পার্টির পলিট ব্যুরোর সদস্য তথা জেলার সাংসদ মহম্মদ সেলিম। জেলাবাসীর দাবিকে অগ্রাধিকার দিয়ে এই নিয়ে একাধিকবার রেলমন্ত্রীসহ রেল বোর্ডের দ্বারস্থ হয়েছেন রায়গঞ্জের সাংসদ। সেই দাবিকে যুক্তিযুক্ত বলে মেনে ১০টি কোচ বিশিষ্ট তেভাগা লিঙ্ক এক্সপ্রেস চালু করার বিষয়ে গত বছর সবুজ সংকেতও মিলেছে। কিন্তু এন এফ রেল ও ইস্টার্ন রেলের মধ্যে সমন্বয়ের অভাবে তা এখনও বাস্তবায়িত হয়নি। এই নিয়ে গত ১৮ই জুলাই ডি আর এম-কে ডেপুটেশন দেওয়া হয়েছিল। এক মাসের সময় দেওয়া হয়েছিল। এই সময়ের মধ্যে দাবি পূরণ না হলে অনির্দিষ্টকালের জন্য রেল রোকো আন্দোলনে নামার হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছিল। পার্টির দাবির প্রতি সহমত পোষণ করে রায়গঞ্জের স্টেশন ম্যানেজার রাজু কুমার প্রতিনিধিদের জানিয়েছিলেন, এব্যাপারে তিনি দ্রুত ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন। কিন্তু তা কার্যকর হয়নি এখনো। এবার মানুষের দাবিকে মর্যাদা দিতেই রেল অবরোধ হবে জেলাজুড়ে। চলছে তারই প্রস্তুতি।

তিনি আরও জানান, এই দাবি নিয়ে পাড়ায় পাড়ায়, মহল্লায় মহল্লায় প্রতিদিন মানুষের দরবারে পার্টিকর্মীরা যাচ্ছেন। রেল অবরোধে অংশ নেওয়ার আবেদনের সাথে কর্মসূচি সফল করতে অর্থসংগ্রহ চলছে। এই সময়কালে রেল কর্তৃপক্ষের উদাসীনতার প্রতিবাদে জান কবুল লড়াইয়ে অংশ নেবেন জেলার হাজার হাজার মানুষ। কালিয়াগঞ্জ, হেমতাবাদ, রায়গঞ্জ, ডালখোলা, পাঞ্জিপাড়া, ইসলামপুর স্টেশনে অবরোধ হবে।

১৮ই জুলাই ডেপুটেশনে রাধিকাপুর-কলকাতা দিনের ট্রেনের পাশাপাশি রাধিকাপুর-বারসই শাটল ট্রেন চালু করার দাবিও তোলা হয়েছিল। জেলার মধ্য দিয়ে দক্ষিণ ভারতের ৮টি ট্রেন চলাচল করে। অথচ উত্তর দিনাজপুর জেলার আলুয়াবাড়ি অথবা জেলার বাণিজ্যিক শহর ডালখোলাতে একটিরও স্টপেজ দেওয়া হয়নি। জেলার মানুষকে দক্ষিণ ভারতে ট্রেনে যেতে হলে একদিকে এন জে পি অথবা মালদহ স্টেশনে যেতে হয়।

ক্যাপশন: রাধিকাপুর-কলকাতা সকালে তেভাগা লিঙ্ক এক্সপ্রেস ও রাধিকাপুর-বারসোই শাটল ট্রেন চালুর দাবিতে ২৫শে আগস্ট থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য রেল অবরোধ হবে। শুক্রবার তার প্রস্তুতিতে বাড়ি বাড়ি প্রচারে পার্টিকর্মীরা।

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement