কেরালায় ফের মৃত ১,
ত্রাণশিবিরে ৩০ হাজার

সংবাদসংস্থা   ১৫ই আগস্ট , ২০১৮

তিরুবনন্তপুরম, ১৪ই আগস্ট— লাগাতার বৃষ্টি, নদীগুলিতে বেড়ে যাওয়া জল, ধস, প্রাণহানি— প্রাকৃতিক দুর্যোগে বিধ্বস্ত কেরালায় আগামী ২৪ঘণ্টায় আরও বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে হাওয়া অফিস। ত্রিচূরে মঙ্গলবার প্রাণ হারিয়েছেন একজন। জখম হয়েছেন দুজন। ভারী বৃষ্টি এবং প্রবল ঝড়ে মাথায় গাছ ভেঙে পড়ে মৃত্যু হয়েছে তাঁর। ইতিমধ্যে ত্রাণ শিবিরে আশ্রয় নিয়েছেন কমপক্ষে তিরিশ হাজার মানুষ।

কেরালার উত্তর অংশে মঙ্গলবারও ভারী বৃষ্টি হয়েছে। অন্যান্য জায়গাতেও বিক্ষিপ্তভাবে বৃষ্টিপাত হয়েছে। আবহাওয়া খারাপ হওয়ায় বন্ধ রয়েছে স্কুল-কলেজ। ওয়েআনাদ, কোঝিকোড়, মালাপ্পুরম, কান্নুর, কাসারগড়, ইদুক্কি এবং পলাক্কাড়ে মঙ্গলবারও মারাত্মক বৃষ্টি হয়েছে। রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় সোমবারও ধস নেমেছে। এই লাগাতার বৃষ্টিতে ২০ হাজারেরও বেশি বাড়ি সম্পূর্ণ ভেঙে পড়েছে। দশ হাজার কিলোমিটার রাস্তা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন মঙ্গলবার জানিয়েছেন, বার্ষিক যে ‘ওনাম’ উৎসব হয়, তার খরচ বাবদ টাকা ত্রাণের কাজে ব্যবহার করা হবে। রাজ্যপাল পি সদাশিবম স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে বুধবার একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিলেন। রাজ্যজুড়ে বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হওয়ায় তা বাতিল করে দিয়েছেন রাজ্যপাল। রাজ্য মন্ত্রীসভা মঙ্গলবার এক বৈঠকে এক হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে রাস্তাঘাট মেরামতের জন্য। আবহাওয়া প্রতিকূল থাকায় রাজ্যবাসীকে বাইরে বেরনোর ক্ষেত্রে সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে। মৎস্যজীবীদেরও সমুদ্রে মাছ ধরতে যাওয়া ব্যাপারে সতর্কবার্তা দেওয়া হয়েছে। নিম্নবর্তী এলাকা থেকে এখনও বহু মানষকে নিরাপদ দূরত্বে সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার কাজ চলছে।

ওয়েআনাদে এদিন সকাল থেকে লাগাতার বৃষ্টিতে চারদিক জলমগ্ন হয়ে পড়েছে। ১২৪টি ত্রাণ শিবিরে ১৩ হাজার ৪৬১জন দুর্গত আশ্রয় নিয়েছেন। হাওয়া অফিসের পূর্বাভাস অনুযায়ী, আগামী ২৪ঘণ্টায় কেরালাজুড়ে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। রাজ্যের সর্বত্র বিপর্যয় মোকাবিলাবাহিনী উদ্ধারকাজ চালাচ্ছে। ইদুক্কিতে মাল্লাপেরিয়ার বাঁধে জলস্তর ক্রমশ বাড়ছে। আগামী ২৪ ঘণ্টায় আরও বৃষ্টির জেরে জলস্তর বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। ওয়েআনাদের বিভিন্ন জায়গায় প্রচুর ধস নেমেছে। মঙ্গলবার রাত পর্যন্ত পাওয়া খবর অনুযায়ী, গোটা কেরালায় এখনও পর্যন্ত ২১৫টি ধসের ঘটনা ঘটেছে। ৪৪টি গ্রামে বন্যা পরিস্থিতি ঘোষণা করেছে রাজ্য সরকার। গত ছদিনের প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে রাজ্যে কমপক্ষে ৮হাজার কোটি টাকার সম্পত্তি নষ্ট হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। আরও চারদিন আবহাওয়া এমনই থাকবে বলে খবর।

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement