আজ কাজের দাবিতে
ধর্মতলায় মিলবেন যুবরা

নিজস্ব প্রতিনিধি   ১৫ই সেপ্টেম্বর , ২০১৮

কলকাতা, ১৪ই সেপ্টেম্বর— মিথ্যার বুলি ছড়ানো নয়। মানুষের জীবন-জীবিকার সুনিশ্চিত গ্যারান্টি চাই। মেকি উন্নয়ন নয়। মানুষের স্বার্থে প্রকৃত অর্থনৈতিক উন্নয়ন করতে হবে। খুলতে হবে বন্ধ কলকারখানা। চালু করতে হবে নতুন নতুন শিল্প। অনিশ্চিত জীবনের অন্ধকারে ডুবতে বসা লা‍খো লাখো বেকারের স্থায়ী কাজের ব্যবস্থা করতে হবে। শনিবার ‘কাজের দাবি দিবসে’ ধর্মতলায় সমাবেশ থেকে ফের এই দাবিতে সোচ্চার হবেন যুব আন্দোলনের কর্মী সমর্থকসহ জীবন যন্ত্রণায় দগ্ধ বেকার যুবক-যুবতীরা। বামপন্থী যুব সংগঠন সমূহের ডাকে এই সমাবেশে যুবকর্মীদের লড়াই সংগ্রামকে অভিনন্দন জানাতে, বেকার যুবক-যুবতীদের দাবি আদায়ের লড়াইকে আরও তীব্র করার আহ্বান জানিয়ে বক্তব্য রাখবেন যুব আন্দোলনের প্রাক্তন নেতা সাংসদ মহম্মদ সেলিমসহ যুব নেতৃবৃন্দ। ধর্মতলায় যুবদের সমাবেশের পাশাপাশি শনিবার কলেজস্ট্রিটে শিক্ষার অধিকার রক্ষাসহ একাধিক দাবিতে ছাত্রদেরও কেন্দ্রীয় সমাবেশ, মহামিছিল। দুটি সমাবেশ থেকে ছাত্র যুবরা কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের মানুষমারানীতি, ছাত্রস্বার্থবিরোধী নীতিগুলির বিরুদ্ধে জোরালো লড়াই সংগ্রামের চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিতে চলেছেন শাসকদলের উদ্দেশ্যে।

প্রসঙ্গত, কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের পুঁজিপতি স্বার্থরক্ষার দৃষ্টিভঙ্গি। কর্পোরেট স্বার্থের দৃষ্টিভঙ্গির জেরে, দেশ ও রাজ্যের অর্থনৈতিক অবস্থার বেহালদশা। গরিব মধ্যবিত্ত মানুষের জীবন চরম সংকটে। বন্ধ হচ্ছে একটার পর একটা রাষ্ট্রায়ত্ত শিল্প, কারখানা। গড়ে উঠছে না নতুন শিল্প। দেশব্যাপী বেকারের সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। জীবন-জীবিকার প্রশ্নে হতাশাগ্রস্ত বেকারদের জন্য ভাবনা নেই কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকারের। আদানি, আম্বানিসহ পুঁজিপতিদের কোটি কোটি টাকা কর ছাড় হয়, অন্যদিকে পেট্রপণ্যের মূল্যসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম লাফিয়ে বাড়ে। মানুষের অভাব যন্ত্রণা নিরসনে কোনও প্রচেষ্টাই নেই। এহেন পরিস্থিতিতে ধর্মীয় উন্মাদনা তৈরি করে মানুষে মানুষে বিভাজনের রাজনীতি, হানাহানির রাজনীতি কায়েম করার অপচেষ্টা চালানো হচ্ছে। ছাত্র যুবদের মধ্যেও এই বিভেদের বিষবাষ্প ছড়ানো হচ্ছে। এরাজ্যের সরকার ও কেন্দ্রের সরকারের নীতিকেই অনুসরণ করে চলেছে। আদতে একে অপরের দোষর হিসাবেই কাজ করে চলেছে।

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ১০০ শতাংশ কাজ করে দেবার দাবি করলেও মানুষের অভিজ্ঞতায় তা মেলেনি। লক্ষ লক্ষ কর্মসংস্থানের মিথ্যার বুলিকে নস্যাৎ করে দেয় কাজের দাবিতে রাজ্যজুড়ে বেকারদের বিক্ষোভ। সরকারি নিয়োগ প্রক্রিয়ায় চরম দুর্নীতি বারে বারে তুলে ধরে বেকার যুবক-যুবতীদের জীবিকা নিয়ে সরকারের ছিনিমিনি খেলার দিকটি। শিল্প সম্মেলন, লগ্নি টানার ভুয়ো দিককে তুলে ধরে বন্ধ কারখানায় তালা, প্রায় তৈরি হয়ে যাওয়া সিঙ্গুরের মোটর কারখানার সলিল সমাধি, বেকার চাকরি প্রার্থীদের জীবন নিয়ে ছিনিমিনি খেলার দিকটি তুলে ধরা হয়। হতাশা, যন্ত্রণা, অনিশ্চিত জীবনের অত‍‌লে ত‍‌লিয়ে যেতে বসা যুবরা শনিবার কৈফিয়ত চাইতে সংগঠিত হবেন। সমাবেশে প্রতিবাদের ভাষা রাজপথজুড়ে ছড়িয়ে দিতে আবারও প্রস্তুত তারা।

দাবি আদায়ের সোচ্চারিত ধ্বনি দিকে দিকে ছড়িয়ে দিতে বেকার যুবক-যুবতীদের গন্তব্য শনিবার ধর্মতলার রানি রাসমনি রোড।

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement