ঘরে তালা দিতে ভুলে যাওয়ায়
মাদ্রাসাকে সাজা পুলিশের

নিজস্ব সংবাদদাতা   ১৫ই সেপ্টেম্বর , ২০১৮

কালনা , ১৪ই সেপ্টেম্বর — মাদ্রাসার ছুটি হয়ে যাওয়ার পর কম্পিউটার ঘরে তালা দিতে ভুলে যাওয়ায় মাদ্রাসাকে সাজা দিল পুলিশ। তালার উপর তালা দিয়ে সময়ে মাদ্রাসা খুলতে না দেওয়া, প্রধান শিক্ষককে দীর্ঘক্ষণ থানায় বসিয়ে রেখে তাঁকে চাবি না দেওয়া, ছাত্রছাত্রী, শিক্ষক থেকে শিক্ষাকর্মীদের মাদ্রাসার বাইরে দীর্ঘক্ষণ রোদে দাঁড়িয়ে থাকতে বাধ্য করানো— কোনোটাই বাদ যায়নি। এরকমই অভিযোগ করেন মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক গোলাম রসুল সিদ্দিক। ঘটনাটি ঘটে নাদনঘাট থানার অন্তর্গত বগপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের সিংহজুলি হাই মাদ্রাসায়। প্রধান শিক্ষক জানান, বুধবার মাদ্রাসা ছুটির পর সমস্ত জায়গায় তালা মারা হলেও ভুলবশত সংশ্লিষ্ট শিক্ষাকর্মী কম্পিউটার ঘরে তালা দেননি। এই ভুলের জন্য মাদ্রাসাকে সাজা দিতে কম্পিউটার ঘরের সাথে গোটা মাদ্রাসাতেই তালা দিয়ে দেয় নাদনঘাট থানার পুলিশ। বৃহস্পতিবার সকাল দশটা থেকেই ছাত্রছাত্রীরা এসে বাইরে দাঁড়িয়ে থাকে। মাদ্রাসায় এসে বিষয়টি জানার পর প্রধান শিক্ষক থানায় ছুটে যান। কিন্তু ঘণ্টা দেড়েক তাঁকে থানায় বসিয়ে রাখা হলেও চাবি দেওয়া হয়নি। খালি হাতে মাদ্রাসায় ফিরে আসায় ছাত্রছাত্রী, শিক্ষক ও শিক্ষাকর্মীদের মধ্যে ক্ষোভের সঞ্চার হয়। মাদ্রাসার বাইরে সকলে অবস্থান বিক্ষোভ শুরু করেন। প্রধান শিক্ষক জয়েন্ট বি ডি ও-কে ফোন করেন। বেলা সাড়ে বারোটার পর থানা থেকে একজন সিভিক ভলান্টিয়ারকে দিয়ে চাবি পাঠিয়ে মাদ্রাসার তালা খুলে দেওয়া হয়। প্রধান শিক্ষক বলেন,তিনি এব্যাপারে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে লিখিতভাবে জানাবেন। নাদনঘাট থানার এক অফিসার জানান, সিভিকরা মাদ্রাসায় রাত পাহারা দিতে গিয়ে কম্পিউটার রুমের ঘরের তালা খোলা দেখে। থানায় ফোন করলে সিভিকদের নির্দেশ দেওয়া হয় বিষয়টি ফোন করে স্কুল কর্তৃপক্ষকে জানাতে। কিন্তু সিভিকরা জানায়, ফোন করে কাউকে পাওয়া যাচ্ছে না। তখন রাতের মতো একটা যে কোনও তালা লাগিয়ে দিয়ে সকালে তা খুলে দেওয়ার কথা বলা হয়। ওই অফিসার বলেন, মাদ্রাসার সুরক্ষার জন্যই তালা লাগাতে বলা হয়েছিল। কাউকে শাস্তি দেওয়ার জন্য নয়। কিন্তু এই যদি থানার নির্দেশ হয়, তাহলে কেবল কম্পিউটার রুমেই তালা পড়তো। বাড়তি হিসাবে অফিস ঘরে একটা তালা লাগানো থাকা সত্বেও আর একটি তালা লাগানো হলো কেন? তবে কি সিভিকরা স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে বাড়তি তালা দিল? এই প্রশ্নের উত্তরটা অজানাই থেকে গেল।

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement