সাত শহীদের রক্তে
ভেজা মাটিতে মহামিছিল

নিজস্ব সংবাদদাতা   ১৫ই সেপ্টেম্বর , ২০১৮

বর্ধমান, ১৪ই সেপ্টেম্বর— জনস্রোতেই জনতার দাবি নিয়ে আছড়ে পড়লো বি পি এম ও-র মহামিছিল। যে মাটিতে শাসকদলের সন্ত্রাসে মানুষের অর্জিত অধিকার পদদলিত, যেখানে গরিব শ্রমজীবী মানুষের রুজি-রুটির আন্দোলন, মজুরির লড়াই করতে গিয়ে শহীদ হয়েছেন গণআন্দোলনের দুই নেতা কমরেড প্রদীপ তা, কমরেড কমল গায়েন— সেই দেওয়ানদিঘি এলাকায় আড়াই বছর পর লালঝান্ডা শুধু উড়লো না, সন্ত্রাস কবলিত এলাকায় মানুষের বুকে ভরসা জাগালো ।

শুক্রবার মিছিল শুরু হয় বাজেপ্রতাপপুর শাপজলা এলাকা থেকে। দীর্ঘ পাঁচ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করে মিছিল শেষ হয় মির্জাপুর ঘোষপাড়ায়। বি পি এম ও-র এই মিছিল দেখতেই রাস্তার দুধারে মানুষ হাজির ছিলেন।

১৯৭১ সাল থেকে গণআন্দোলন, গণতন্ত্র রক্ষার আন্দোলন করতে গিয়ে মোট ৭জন শহীদ হন। কমরেড প্রদীপ তা, কমল গায়েন ছাড়াও শহীদ হয়েছেন জীতেন হাজরা, স্বদেশ সামন্ত, স্বাধীন সামন্ত, ভক্তি পেড়েল ও যশ মাল। সেই সাত শহীদের রক্তে ভেজা মাটিতে এদিন মূলত বি পি এম ও-র ৮দফা দাবিকে সামনে রেখে মিছিল হেঁটেছে দীর্ঘপথ।

মিছিল থেকে দাবি ওঠে অবিলম্বে পেট্রল, ডিজেলের দাম কমাও, কৃষকের ফসলের লাভজনক দর দিতে হবে, কৃষকের ঋণ মুক্তি। শ্রমিকের ন্যূনতম ১৮হাজার টাকা মজুরি, সামাজিক নিরাপত্তা ইত্যাদি। রাজ্যে দুর্নীতি, লাগামছাড়া সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে এই মিছিল বাজেপ্রতাপপুর, হটুদেওয়ান, দেওয়ানদিঘি, মির্জাপুর এলাকার মানুষদের উদ্দীপ্ত করে। মিছিলে এদিন শ্রমজীবী মানুষের ভীড় ছিল চোখে পড়ার মতো। মহিলারাও লালঝান্ডা হাতে নিয়ে মিছিলে হেঁটেছেন।

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement