অনুপ্রবেশের ছক বানচাল,
গুলিতে হত পাঁচ সন্ত্রাসবাদী,
মৃত্যু জওয়ানেরও

সংবাদসংস্থা   ২৫শে সেপ্টেম্বর , ২০১৮

শ্রীনগর, ২৪শে সেপ্টেম্বর— অনুপ্রবেশের ছক বানচাল করে পাঁচ সন্ত্রাসবাদীকে হত্যা করা হয়েছে বলে সোমবার দাবি করল নিরাপত্তা বাহিনী। এই গুলির লড়াইয়ে প্রাণ হারান এক জওয়ানও।

সেনাবাহিনীর দাবি, পাক অধিকৃত কাশ্মীর থেকে পাঁচ সন্ত্রাসবাদী নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর উত্তর কাশ্মীরের কুপওয়ারায় তাংধার সেক্টর দিয়ে কাশ্মীরে অনুপ্রবেশের চেষ্টা চালায়। সীমান্তে সন্দেহজনক গতিবিধি চোখে পড়ায় তৎক্ষণাৎ গুলি চালান কর্তব্যরত জওয়ানরা। পালটা গুলি চালায় সন্ত্রাসবাদীরাও। প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের মুখপাত্র কর্নেল রাজেশ কালিয়া সোমবার জানান, রবিবার একদল সন্ত্রাসবাদী সীমান্ত টপকে ঢোকার চেষ্টা করেছিল। জওয়ানরা তাদের আত্মসমর্পণ করতে বললে স্বয়ংক্রিয় অস্ত্র দিয়ে গুলি চালাতে শুরু করে তারা। গুলি চালাতে চালাতেই ওই এলাকা থেকে পালিয়ে যায় সন্ত্রাসবাদীরা। তারপরই শুরু হয় তল্লাশি অভিযান। ঘন অন্ধকারের জন্য রবিবার রাতে তল্লাশি অভিযান বন্ধ করে দেওয়া হয়। সোমবার ভোরের আলো ফুটতেই ফের শুরু হয় অভিযান। ওই মুখপাত্র জানান, রবিবার গুলির লড়াইয়ে মৃত্যু হয় দুই সন্ত্রাসবাদীর এবং সোমবার আরও তিনজন প্রাণ হারায়। এদিনই এক জওয়ানের মৃত্যু হয়েছে সন্ত্রাসবাদীদের গুলিতে। সোমবার রাত পর্যন্ত পাওয়া খবর অনুযায়ী, আরও কয়েকজন সন্ত্রাসবাদীর খোঁজে তল্লাশি অভিযান চলছে।

এদিকে, সোপোরের বাসিন্দা বছর ৪৫’র এক ব্যক্তিকে শনিবার রাতে অপহরণ করেছিল মাওবাদীরা। মুশতাক আহমেদ মীর নামে ওই ব্যক্তির দেহ একটি ফলের বাগান থেকে উদ্ধার হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, শনিবার রাতে হারওয়ানে মুশতাকের বাড়িতে ঢুকে তাঁকে অপহরণ করে সন্ত্রাসবাদীরা। এদিন লাট্টিশট থেকে উদ্ধার হয়েছে তাঁর দেহ। দেহে কোনও আঘাত বা ক্ষতের চিহ্ন আছে কি না তা জানা যায়নি। সোমবার রাত পর্যন্ত স্পষ্ট হয়নি, কেন ওই ব্যক্তিকে অপহরণ করে খুন করল সন্ত্রাসবাদীরা। প্রাথমিকভাবে অনুমান, পুলিশের চর সন্দেহেই মুশতাককে হত্যা করেছে তারা।

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement