ফুটবল তৈরি করে রোজগারের
পথ খুঁজে পেয়েছেন
বাঘনাপাড়ার মহিলারা

নিজস্ব সংবাদদাতা   ১২ই অক্টোবর , ২০১৮

কালনা, ১১ই অক্টোবর — ফুটবল তৈরি করে কালনার বাঘনাপাড়া গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় শতাধিক গ্রামীণ মহিলা কিছুটা আয়ের পথ খুঁজে পেয়েছেন। সংসারের কাজ সামাল দিয়েও এই আয়ে খুশি গ্রামের মহিলারা। কলকাতার রিফিউজি হ্যান্ডিক্র্যাফ্টস নামের একটি সংস্থা এই মহিলাদের ফুটবল তৈরির প্রশিক্ষণ দেয় কিছুদিন আগে। প্রশিক্ষণ দেওয়ার সময়ই এই সংস্থার পক্ষ থেকে ঘোষণা করা হয় ফুটবল তৈরির কাঁচা মাল তারাই সরবরাহ করবে। পাশাপাশি উৎপাদিত মাল তারাই নিয়ে নেবে। যারা তৈরি করবেন তারা ফুটবল পিছু ৫০ টাকা করে মজুরি পাবেন। প্রশিক্ষণ শেষে প্রশিক্ষিত মহিলারা ইতিমধ্যেই ফুটবল তৈরির কাজ শুরু করে দিয়েছেন।

গ্রাম গঞ্জে মানুষের কাছে ফুটবল তৈরির কাজ একেবারেই নতুন। তাই কালনার বাঘনাপাড়া গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার মহিলারা এই কাজে সে রকম পারদর্শী হয়ে উঠতে না পারলেও সংসারের কাজ সামাল দিয়েও তারা দিনে দুটি করে ফুটবল তৈরি করতে রছেন বলে দাবি সংশ্লিষ্ট সংস্থার কর্মকর্তাদের। সংস্থার আরও দাবি, কলেজ পড়ুয়া মেয়েরাও ফুটবল তৈরিতে হাত লাগিয়েছেন। সম্মানের সঙ্গে গ্রামে বসেই তাঁরা তিন থেকে চার হাজার টাকা রোজগারের পথ খুঁজে পেয়েছেন। তাই উৎসবের আগে খুশির হওয়া বইছে বাঘনাপাড়া, কেশবপুর, পাতাইগাছি, খাসপুর, ফড়িংগাছি, সূর্যপুর ইত্যাদি গ্রামের মহিলাদের পরিবারে। সংশ্লিষ্ট সংস্থার সুপার ভাইজার সঞ্জয় বসু বলেন, ফুটবল তৈরিতে মহিলাদের উৎসাহ দেখে ভালো লাগছে। এলাকায় প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত ১১০জন মহিলা ফুটবল তৈরির কাজে যুক্ত হয়েছেন। এই কাজে পটু হয়ে না ওঠায় প্রথম দিকে একজন মহিলা দিনে দুটি করে ফুটবল তৈরি করছেন। কাজ করতে করতে পারদর্শী হয়ে উঠলে দিনে চারটি ফুটবলও তৈরি করতে পারবেন। ফুটবল তৈরির কাজে কর্মরত সপ্তমী মণ্ডল, তাপসী সাঁতরা, বিউটি মজুমদার বলেন, আমরা সংসারের কাজ নিয়েই ব্যস্ত থাকতাম। অবসরে তেমন রোজগারের সুযোগ ছিল না। প্রশিক্ষণ নিয়ে ফুটবল তৈরি করে আজ আমরা উৎসবের মুখে রোজগারের পথ খুঁজে পেয়েছি। সংসার খরচে কিছুটা হলেও স্বামীর পাশে দাঁড়াতে পারছি। আরও ভালো লাগবে যদি সংশ্লিষ্ট রিফিউজি হ্যান্ডিক্র্যাফ্টস নামের সংস্থাটি নিয়মিত কাজ দেয়। উল্লেখিত সংস্থার ভাইস চেয়ারম্যান হলেন জাতীয় দলের প্রাক্তন ফুটবলার বিদেশ বসু। তিনি এই বাঘনাপাড়া এলাকারই সন্তান। তিনি বলেন, বর্তমানে আমাদের সংস্থার উৎপাদিত ফুটবল রাজ্যের সীমা ছাড়িয়ে ভিনরাজ্যেও পাড়ি জমিয়েছে। আমাদের ফুটবল বাজার পাবে বলে আমরা আশাবাদী

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement