বেঙ্গল সাফারি পার্কের এনক্লোজারে
চিতাবাঘের হামলায় জখম গাড়ি চালক

নিজস্ব সংবাদদাতা   ৯ই নভেম্বর , ২০১৮

শিলিগুড়ি, ৮ই নভেম্বর – শিলিগুড়ি শহর সংলগ্ন বেঙ্গল সাফারি পার্কে চিতাবাঘের হামলায় জখম হলেন বন বিভাগের গাড়ি চালক। অপ্রশিক্ষিত চালক দিয়ে গাড়ি চালানোর ফলেই যে এই বিপত্তি তা স্বীকার করে নিয়েছেন বনকর্তারা। রাজ্যের প্রাক্তন বনমন্ত্রী যোগেশ বর্মণের অভিযোগ, আসলে কোন পরিকাঠামোই নেই। সবটাই ‘কসমেটিক ডেভেলপমেন্ট’।

দীপাবলির ছুটিতে শিলিগুড়ি শহর সংলগ্ন বেঙ্গল সাফারি পার্ক বুধবার ছিল পর্যটকদের ভিড়ে ঠাসা। বেঙ্গল সাফারি পার্কে এনক্লোজারের ভেতরে বিস্তীর্ণ প্রাকৃতিক বনাঞ্চলে ছাড়া আছে রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার, চিতাবাঘ, হরিণ। এনক্লোজারের ভেতরে বন্য জন্তুরা খোলামেলা বিচরণ করায় এখানে পর্যটকদের ঘোরানো হয় বনদপ্তরের কাঁচে ঢাকা বিশেষ গাড়িতে। পর্যটকদের গাড়িগুলোতে নজরদারি চালাতে বনদপ্তরের কর্মীরা অন্য গাড়িতে এনক্লোজারের ভেতরে যান। বন বিভাগ সূত্রে খবর, নজরদারি চালানোর জন্য বনদপ্তরের নিজস্ব কোনও গাড়ি নেই। প্রয়োজনের ভিত্তিতে গাড়ি ভাড়া নেওয়া হয় বাইরে থেকে। বনদপ্তরের কর্মী সংকটের কারণে গাড়ির সঙ্গেই একজন করে চালক দিয়ে দেন গাড়ির মালিক। স্বাভাবিক কারণে অপ্রশিক্ষিত ওই গাড়ি চালকদের বন্য জন্তু সম্পর্কে কোন ধারণাই থাকে না। বেঙ্গল সাফারি পার্ক সূত্রে জানা গেছে, বুধবার বাইরে থেকে ভাড়া নেওয়া এমনই একটি গাড়ির চালক সুরিন্দর পাল সিংহ চিতাবাঘের এনক্লোজারের ভেতরে হঠাৎই গাড়ি থেকে নেমে পড়েন। তখনই তার ওপর হামলা চালায় চিতাবাঘটি। কামড়ে দেয়া গলায়। থাবা মারে ওই গাড়ি চালকের শরীরের বিভিন্ন অংশে। কোনরকমে তাকে উদ্ধার করে বনকর্মীরা উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন।

বেঙ্গল সাফারি পার্কের অধিকর্তা অরুণ মুখার্জি জানিয়েছেন, কেন ওই গাড়ির চালক এ রকম ঘটনা ঘটাল, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। পার্কের বিভিন্ন অংশে বেশ কিছু ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা থাকলেও বাড়তি ক্যামেরা বসানোর চিন্তাভাবনা শুরু করেছে বনদপ্তর। এই ঘটনার পর বনকর্মীদের প্রশিক্ষণেও বিশেষ জোর দেওয়া হবে বলে তিনি জানিয়েছেন। এদিকে, দুর্ঘটনার পর বৃহস্পতিবার বন্ধ রাখা হয় বেঙ্গল সাফারি পার্ক। রাজ্যের প্রাক্তন বনমন্ত্রী যোগেশ বর্মণ জানিয়েছেন, বামফ্রন্ট সরকার জলদাপাড়ায় কুঞ্জবন, খয়েরবাড়ি সাফারি পার্ক, রসিক বিলের মতো পর্যটন কেন্দ্র তৈরি করেছিল। বর্তমান রাজ্য সরকার বনদপ্তরের অধীনে থাকা সেই সমস্ত পর্যটন কেন্দ্রগুলো নষ্ট করে ফেলেছে। তার পরিবর্তে বেঙ্গল সাফারি পার্ক তৈরি করেছে অথচ সেখানে কোন পরিকাঠামোই নেই। বন বা বন্যজন্তু সম্পর্কে কোনরকমের প্রশিক্ষণ ছাড়া কিভাবে একজন অদক্ষ গাড়ি চালককে বেঙ্গল সাফারি পার্কের কাজে নিয়োগ করা হলো সেই প্রশ্নও তোলেন তিনি।

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement