জেলায় জেলায় বিরাট মিছিল,
মানববন্ধন জানিয়ে দিল

নিজস্ব সংবাদদাতা   ৭ই ডিসেম্বর , ২০১৮

শিলিগুড়ি, ৬ডিসেম্বর – সাম্প্রদায়িক উন্মাদনা সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে শিলিগুড়িতে একমাস ধরে চলা লাগাতার প্রচারের প্রতিফলন ঘটল বৃহস্পতিবার সম্প্রীতির মহামিছিলে। বামপন্থী ও সহযোগী দলসমূহের আহ্বানে মহামিছিলে হাজারো গণতন্ত্রপ্রিয় মানুষ উপস্থিত ছিলেন। এদিনের জনসমুদ্রে প্রমাণ, শিলিগুড়ি তথা উত্তরবঙ্গের মানুষ রয়েছেন দাঙ্গার বিরুদ্ধে, ঐক্যের সঙ্গে, বামপন্থীদের পক্ষে। এদিন বিকালে স্থানীয় বাঘাযতীন পার্ক থেকে শুরু হয় মহামিছিল। মিছিলের মেয়র অশোক ভট্টাচার্য বলেন বি জি পি তৃণমূল মানুষের পাশে নেই, এরা চায় মানুষে মানুষে বিভেদ সৃষ্টি করতে। মিছিলের পুরোভাগে অশোক ভট্টাচার্য, জীবেশ সরকার সহ জেলার বামপন্থী দলগুলির নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

শুধু শিলিগুড়ি নয় উত্তরের জেলাগুলির সর্বত্র কোথাও মানববন্ধন, কোথাও মিছিল জানিয়ে দিল সাধারণ মানুষ সাম্প্রদায়িক ভেদাভেদ চান না।

দেশের ধর্ম নিরপেক্ষতা অটুট রাখতে জাত-পাত-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির মেলবন্ধন সুদৃঢ় করার আহ্বান জানিয়ে মিছিলে পথ হাঁটল জলপাইগুড়ি। জলপাইগুড়ি জেলা বামফ্রন্টের আহ্বানে সাড়া দিয়ে এদিনের কর্মসূচিতে অংশ নেয় বামফ্রন্টের শরিক দল ছাড়াও সিপিআইএমএল (লিবারেশন)। মিছিল শুরুর আগে এদিন ডাক্তার বি আর আম্বেদকারের প্রয়াণ দিবসে তাঁর প্রতিকৃতিতে মালা দিয়ে শ্রদ্ধা জানান জেলা বামফ্রন্টের আহ্বায়ক সলিল আচার্য সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। ধর্ম নিরপেক্ষতা ও সম্প্রীতি রক্ষার আবেদন জানিয়ে এরপর ডিবিসি রোড থেকে বের হয়ে মিছিল শহরের বিভিন্ন পথ পরিক্রমা করে। মিছিল শেষে প্রতিবাদসভা হয়। সভায় বক্তব্য রাখেন বিভিন্ন বামপন্থী দলের নেতৃবৃন্দ। এদিন জলপাইগুড়ির আশপাশ এবং রাজগঞ্জ, ময়নাগুড়ি, ধূপগুড়ি, মালবাজার, চালসা সহ জেলার বিভিন্ন প্রান্তে সংহতি মিছিল ও সভা হয়।

বাবরি মসজিদ ধ্বংসের ২৬-তম বার্ষিকী এবং ড. বি আর আম্বেদকারের প্রয়াণ দিবসে বামফ্রন্ট ও সহযোগী বামপন্থী দলগুলির আহ্বানে এদিন আলিপুরদুয়ারে সম্প্রীতি মিছিল হয়। একটি মিছিল আলিপুরদুয়ার কোর্ট অফিসার্স ক্লাবের সামনে থেকে বেরিয়ে আলিপুরদুয়ার চৌপথিতে শেষ হয়। মিছিল শেষে সভায় বক্তব্য রাখেন সিপিআই(এম)-র কৃষ্ণ ব্যানার্জি সহ জেলা বামফ্রন্টের নেতৃবৃন্দ। আর একটি মিছিল হয় জংশন এলাকায়। আলিপুরদুয়ার জংশন অঞ্চলে সম্প্রীতি রক্ষার আহ্বান জানিয়ে সভা করে ডিওয়াইএফআই। এছাড়াও আলিপুরদুয়ার ২নং ব্লকের কুমারগ্রাম, বারোভিষা, ভাটিবাড়ি, ফালাকাটা সহ বিভিন্ন এলাকায় বামফ্রন্ট ও বামপন্থী দলগুলির ডাকে ভারতের সংবিধান ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষার আহ্বান জানিয়ে মিছিল হয়।

বৃহস্পতিবার কোচবিহার শহরের মরাপোড়াদিঘি চৌপথীতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করল কোচবিহার শহরের বামপন্থী দলসমূহ। কর্মসূচির নেতৃত্ব দেন জেলা বামফ্রন্টের আহ্বায়ক তারিনী রায় সহ বামপন্থী দলগুলির নেতৃবৃন্দ। এদিন এছাড়াও তুফানগঞ্জ, দিনহাটা, মাথাভাঙা সহ জেলার বিভিন্ন এলাকায় সম্প্রীতি মিছিল হয়।

উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জে বামফ্রন্টের মহামিছিল শুরু হয় শিলিগুড়ি মোড় থেকে। মহামিছিলের পুরোভাগে জেলা বামফ্রন্টের আহ্বায়ক অপূর্ব পাল ছাড়াও জেলা বামফ্রন্টের নেতৃবৃন্দ। এছাড়াও ইসলামপুর, ইটাহার, গোয়ালপোখর, চোপড়ার দাসপাড়াতে মিছিল হয়।

বামপন্থী দলগুলির ডাকে এদিন বালুরঘাট সহ দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বভিন্ন এলাকায় সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষায় বড় বড় মিছিল হয়েছে। বৃহস্পিতবার বালুরঘাট হাইস্কুল মাঠ থেকে বিরাট মিছিল শুরু হয়ে শহর পরিক্রমা করে। শেষে বাসস্ট্যান্ডে সমাবেশে বামফ্রন্টের জেলা আহ্বায়ক নারায়ণ বিশ্বাস সহ জেলা বামফ্রন্টের নেতারা তৃণমূল, বিজেপি-র প্রতিযোগিতামূলক সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে সকলকে সোচ্চার হবার ডাক দেন। জেলা সদর ছাড়াও গঙ্গারামপুর, কুশমণ্ডির তিনটি যায়গা, কুমারগঞ্জ, তপন, হিলি, হরিরামপুর, বংশীহারি ব্লকের বুনিবাদপুরে সম্প্রীতি মিছিল হয়।