সীমান্তবর্তী গ্রামে পুলিশ
গ্রামবাসী সঙ্ঘর্ষ, আটক দুই

নিজস্ব সংবাদদাতা   ১১ই ডিসেম্বর , ২০১৮

রায়গঞ্জ, ১০ ডিসেম্বর— দুই বাংলাদেশিকে পাচারকারী সন্দেহে সীমান্তবর্তী এলাকায় ধরতে গিয়ে পুলিশের গুলিতে আহত হলো দু’জন। চরম বচসা থেকে পুলিশের সাথে সঙ্ঘর্ষ হয় গ্রামবাসীদের। গ্রাম জুড়ে চরম উত্তেজনা ছড়ায়। গ্রামবাসীদের অভিযোগ, পুলিশের গুলিতে আহত হয়েছেন দুই গ্রামবাসী। পুলিশের দাবি, আহত বেশ কয়েকজন পুলিশ কর্মীও। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর দিনাজপুর জেলার গোয়ালপোখর থানার ডাঙ্গীবস্তি বাংলাদেশ সীমান্ত এলাকায়। আহত ওই দুই গ্রামবাসীর নাম আব্দুল মালেক ও রহমান আলি। এই ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। ঘটনাস্থলে গোয়ালপোখর থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী যায়।

গোয়ালপোখর থানার পুলিশ গোপন সূত্রে জানতে পারে, বাংলাদেশ সীমান্ত ডাঙ্গীবস্তি এলাকার বাসিন্দা মনজুরের বাড়িতে দুই বাংলাদেশি আশ্রয় নিয়ে আছে। দুই বাংলাদেশি সন্দেহে ওই দুজনকে রবিবার গভীর রাতে পুলিশ ধরতে যায়। সেই সময় গ্রামবাসীরা পুলিশকে বাধা দিলে পুলিশ সেখান থেকে ফিরে আসে। আবার রাতেই গোয়ালপোখর থানা থেকে বিশাল পুলিশ বাহিনী নিয়ে গেলে গ্রামবাসীদের সঙ্গে শুরু হয় সঙ্ঘর্ষ। পুলিশকে লক্ষ্য করে গ্রামবাসীরা ইঁট পাথর ছুঁড়তে থাকে। পালটা পুলিশ গ্রামবাসীকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় বলে অভিযোগ। পুলিশের গুলিতে আহত হয় আব্দুল মালেক ও রহমান আলি নামে দুই গ্রামবাসী। উত্তেজিত গ্রামবাসী পুলিশের গাড়িতে ভাঙচুর চালায় বলে পালটা অভিযোগ। এই ঘটনায় দুই জনকে আটক করে নিয়ে আসে পুলিশ। পুলিশের গুলি চালানোর প্রতিবাদে সোমবার এলাকায় রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায় ডাঙ্গীবস্তি গ্রামের বাসিন্দারা। পুলিশ গ্রামবাসীদের মধ্যে সঙ্ঘর্ষের ঘটনা নিয়ে জেলা পুলিশসুপার জানান, দুই বাংলাদেশিকে পুলিশ গ্রেপ্তার করতে গেলে গ্রামবাসীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে এলোপাথাড়ি ইট পাথর ছুঁড়তে থাকে। পরিস্থিতি সামাল দিতে পুলিশ কয়েক রাউন্ড রাবার বুলেট চালিয়েছে পুলিশ। এখনও পর্যন্ত সঙ্ঘর্ষের ঘটনায় দুজন গ্রামবাসীকে আটক করা হয়েছে। তদন্ত চলছে।

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement