অবিচারের প্রতিবাদে অঙ্গনওয়াড়ি
কর্মী সহায়িকাদের ডেপুটেশন

নিজস্ব সংবাদদাতা   ১১ই ডিসেম্বর , ২০১৮

বাঁকুড়া, ১০ ডিসেম্বর— অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী সহায়িকাদের ভাতা বাড়ানোর ঘোষণার পর একমাস সেই ভাতা দিয়েও পরে বর্ধিতভাতার একটা অংশ সরকার কেটে নেয়। এই অবিচারে চরম অপমানিত বোধ করেছেন কর্মী সহায়িকারা। অবিলম্বে মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী কর্মী সহায়িকাদের একহাজার টাকা করে ভাতা দিতেই হবে। এই দাবিতে সোমবার বাঁকুড়ায় আইসিডিএস কর্মী সমিতির ডাকে মিছিল করে জেলাশাসকের কাছে ডেপুটেশন দেওয়া হয়।

এদিন ডেপুটেশনে জানানো হয়, মে মাসে মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণার পর অক্টোবর মাসে তাঁদের অ‌্যাকাউন্টে বর্ধিত টাকা আসে। কিন্তু নভেম্বর মাসে জানানো হয় এক এবার থেকে কর্মীদের চারশো ও সহায়িকাদের ৭০০ টাকা করে দেওয়া হবে। কারণ হিসাবে জানানো হয় কেন্দ্রের ঘোষিত এই ভাতার ৪০শতাংশ রাজ্যকে দিতে হবে। অঙ্গনওয়াড়ি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ জানান, এটা রাজ্য সরকারের মাথা ব্যথা। কিভাবে তারা দেবে সেটা সরকারকেই ঠিক করতে হবে। সেক্ষেত্রে অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী সহায়িকাদের উপর কোপ পড়ল কেন? অবিলম্বে ১০০০টাকা করে সকলকে দিতে হবে। এদিন আরও দাবি তোলা হয় বর্তমানে ৬৫বছর বয়স হয়ে গেলেই কর্মী সহায়িকাদের খালি হাতে অবসর দিয়ে দেওয়া হয়। যাঁরা বছরের পর বছর ধরে শিশু, প্রসূতি মায়েদের দেখভাল করেন তাঁদের সম্পর্কে সরকারের কেন এত তাচ্ছিল্য? সংগঠনের দাবি অবসর নেওয়ার পর কর্মীদের ৩লক্ষ ও সহায়িকাদের ২লক্ষ করে টাকা এবং ৬হাজার করে পেনশন দিতে হবে। ডেপুটেশনে উল্লেখ করা হয় কোন কারণ ছাড়াই বাঁকুড়া জেলার একাধিক কেন্দ্রের অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী সহায়িকাদের বদলি করা হচ্ছে। নানা ক্ষেত্রে শাসকদলের লোকজন হস্তক্ষেপ করছে। এই কাজ বন্ধ করতে হবে। তাছাড়া জ্বালানির জন্য বরাদ্দ টাকার পরিমাণও বাড়াতে হবে।

এদিন বাঁকুড়ার তামলিবাঁধ থেকে মিছিল বের হয়। মিছিল জেলাশাসকের দপ্তরের সামনে বেশ কিছুক্ষণ অবস্থান করে। দাবিগুলি নিয়ে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের জেলা সম্পাদিকা ইন্দ্রাণী মুখার্জি, সভানেত্রী সুস্মিতা বিশ্বাস, সিআইটিইউ জেলা সম্পাদক সৌমেন্দু মুখার্জি, মহিলা সমিতির সম্পাদিকা শিউলি মিদ্যা, রাজ্যনেত্রী দেবলীনা হেমব্রম, সুদীপা ব্যানার্জি প্রমুখ। ডেপুটেশন নিয়ে অতিরিক্ত জেলাশাসক প্রতিনিধিদের জানান, বিষয়গুলি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement