মরণ-বাঁচন ম্যাচে মেসিদের
সামনে টটেনহ্যাম ত্রিমুখী লড়াই
নাপোলি-পিএসজি-লিভারপুলের

সংবাদসংস্থা   ১১ই ডিসেম্বর , ২০১৮

বার্সেলোনা, ১০ ডিসেম্বর— মরণ বাঁচন ম্যাচ টটেনহ্যাম হটস্পারের। নক আউটের ছাড়পত্র পেতে হলে জিততেই হবে। কিন্তু অ্যাওয়ে ম্যাচে বার্সেলোনার মাঠ থেকে জয় ছিনিয়ে নেওয়া সহজ নয়। বার্সেলোনা এর মধ্যেই নক আউটে পৌঁছেছে গ্রুপ শীর্ষে থেকে। পি এস ভি আইন্ডোভেনের বিরুদ্ধে মেসির চোখ ধাঁধানো গোলে তিন পয়েন্ট নিশ্চিত হয়েছিল। কিন্তু পাঁচ ম্যাচে সাত পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে আছে টটেনহ্যাম এবং ইন্টার মিলান। ফলে কাতালান ক্লাবের থেকে পয়েন্ট কাড়তে না পারলে পরের রাউন্ডে যাওয়া কঠিন।

বার্সেলোনা ঘরের মাঠে শেষ ২৮টি ম্যাচে অপরাজিত। এমনকি প্রথম লেগে ওয়েম্বলিতে ৪-২ গোলে হারিয়েও এসেছে। তারপরেও আশা ছাড়ছেন না টটেনহ্যাম কোচ মরিসিও পোচেটিনো। গ্রুপের গণ্ডি টপকানোর বিষয়ে আশাবাদী তিনি। যদিও ২০০৮ সাল থেকে টটেনহ্যাম কোনও ট্রফিই জেতেনি। এমনকি সাম্প্রতিককালে দুবারই নক আউটে পৌঁছাতে পেরেছি। তাই সামনে বড় চ্যালেঞ্জ। কোচও জানিয়েও দিলেন, ‘এই ম্যাচটা বেশ কঠিন হতে পারে। বার্সেলোনা পরের রাউন্ডে পৌঁছে গেছে। কিন্তু চ্যাম্পিয়ন্স লিগে কেউ কাউকে ছেড়ে দেয় না। আমাদের জিততেই হবে আর আমরা জয়ের দাবিদারও। আমরা মানসিকভাবে ২০০ শতাংশ তৈরি জয় পাওয়ার জন্য। বার্সেলোনা ইউরোপের সেরা দল হলেও, আমরা নিজেদের তৈরি করেই যাচ্ছি।’ চোট সারিয়ে ফিরেছেন লুইস সুয়ারেজ। গত ম্যাচে এসপ্যানিওলের বিরুদ্ধে মেসির জোড়া গোল তাঁর ছন্দে থাকার ইঙ্গিতই বহন করছে। আবার আইন্ডোভেনের বিরুদ্ধে ইন্টার জিতলেও টটেনহ্যামের পরের রাউন্ডে যাওয়ার পথ সঙ্কীর্ণ হবে।

আবার জটিল পরিস্থিতিতে রয়েছে নাপোলি, পিএসজি এবং লিভারপুল। গ্রুপ সি’র কোনও দলই এখনও নক আউটের ছাড়পত্র পায়নি। যদিও পাঁচ ম্যাচে নয় পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রয়েছে নাপোলি। ৮ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে পিএসজি এবং ৬ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে লিভারপুল। নাপোলির বিরুদ্ধে জিততে না পারলে লিভারপুলের তাই বিদায়ের পথ পাকা হবে। অন্যদিকে আপাত সহজ ম্যাচে রেডস্টার বেলগ্রেডের বিরুদ্ধে খেলবেন নেইমার-এমবাপ্পেরা। রিয়াল মাদ্রিদের বিরুদ্ধে ফাইনালে হারের সাত মাসের মধ্যে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ থেকে বিদায়ের ভয় রয়েছে লিভারপুলের। তবে মহম্মদ সালাহর সঙ্গে যোগ দেবেন সাদিও মানে। চোট কাটিয়ে ফিরছেন মানে। যা নাপোলির বিরুদ্ধে ভরসা দিচ্ছে লিভারপুলকে। এমনকি ক্লপ জানিয়েছেন, ‘ফুটবলে তুমি যাই কর না কেন, খেলা শেষ করার জন্য একজনকে দরকার।’ বোর্নমাউথের বিরুদ্ধে সালার হ্যাটট্রিক তাই ভরসা দিয়েছে ক্লপকে। সেই উদাহরণ টেনেই বলেছেন, ‘দ্বিতীয়ার্ধে দুটি গোলের সময় ও যা করেছে তা অতুলনীয়। আমি খুব বেশি ফুটবলারকে জানি না যারা এই দুটি গোল করতে পারত।’

রাত ১১.২৫ : শালকে : লোকোমোটিভ মস্কো, গালাতেসারায় : পোর্তো

রাত ১.৩০ : অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ : ক্লাব ব্রুগ, ইন্টার মিলান : আইন্ডোভেন, বার্সেলোনা : টটেনহ্যাম, রেড স্টার বেলগ্রেড : পিএসজি, মোনাকো : ডর্টমুন্ড, লিভারপুল : নাপোলি

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement