কাঁকসায় বিজেপি কর্মী খুনে
অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা

নিজস্ব সংবাদদাতা   ১১ই ডিসেম্বর , ২০১৮

দুর্গাপুর, ১০ডিসেম্বর — কাঁকসা থানার সরস্বতীগঞ্জে সন্দীপ ঘোষ (২০) নামে এক বিজেপি কর্মীকে রবিবার রাতে গুলি করে খুন করা হয়। দুর্গাপুর মাইকেল মধুসূদন কলেজের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র ছিল সন্দীপ। মৃতের বাবা বিজয় ঘোষ তৃণমূল নেতা। তিনি প্রায় ১০বার তৃণমূলের অঞ্চল সভাপতি হয়েছেন। মৃতের পরিবারের পক্ষ থেকে তৃণমূলের বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ আনা হয়েছে। জাটগড়িয়া অঞ্চলের বালি ও কয়লা মাফিয়াদের নামে, সুনির্দিষ্টভাবে তৃণমূল নেতা তথা বালির কারবারি সাইফুল ইসলামকে খুনে অভিযুক্ত করা হয়েছে। মাস কয়েক হলো তৃণমূল নেতা বিজয় ঘোষের ছেলে বিজেপি করছিল। জানা গেছে, সাইফুলের নামে বার কয়েক থানায় অবৈধ বালি পাচারের অভিযোগ করেছিল সন্দীপ। ঐদিন রাতে সরস্বতীগঞ্জ মোড় থেকে কয়েকজন বন্ধুর সঙ্গে বাড়ি ফেরার পথে তাদের ঘিরে ধরে মারধর করা হয়। পালানোর সময় সন্দীপকে পিছন থেকে গুলি করা হয়। ৩-৪ জন আহত হয়েছে। ১জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সোমবার মৃতদেহ নিয়ে উত্তেজনা ছড়ায়। আসানসোলে ময়নাতদন্ত শেষে হাসপাতালের সামনে এস বি গরাই রোডে মৃতদেহ রেখে বিজেপি বাহিনী বসে পড়ে। লকেট চট্টোপাধ্যায় সহ বিজেপি নেতারা উপস্থিত ছিলেন। পরে মৃতদেহ দুর্গাপুরে নিয়ে এসে আর এক দফা উত্তেজনা ছড়ানো হয়। কাঁকসার গ্রামে মৃতদেহ নিয়ে যাবার পথে চাঞ্চল্য ছড়ায়। রাতে কাঁকসা থানায় বিক্ষোভ চলছে। রয়েছেন বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু, লকেট চট্টোপাধ্যায় সহ দলীয় নেতারা। মঙ্গলবার দুর্গাপুর মহকুমায় ১২ঘণ্টার বন্‌ধ ডেকেছে বিজেপি।

একমাত্র ছেলেকে হারিয়ে তৃণমূল নেতা বিজয় ঘোষ বলেছেন, দিদি কোন ধরনের রাজনীতি করছেন বুঝতে পারছি না। খুনখারাবি বন্ধ করুন। মূল অভিযুক্ত বালির কারবারি তৃণমূল নেতা সাইফুল ইসলাম এখনও অধরা। দু’জনকে আটক করেছে পুলিশ।

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement