মনসংযোগ ধরে
রাখাই চ্যালেঞ্জ ভারতের

মিশন বিশ্বকাপ প্রস্তুতি

  ১২ই জানুয়ারি , ২০১৯

সিডনি, ১১ জানুয়ারি— টেস্ট জয়ের রেশ কাটিয়ে একদিনের ক্রিকেটে পা। অপ্রত্যাশিতভাবে অক্রিকেটীয় বিষয়ে সেখানে বিতর্কের হানা। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে একদিনের সিরিজ শুরুর আগে একটাই প্রশ্ন, ভারতীয় দলের ফোকাস ঠিক থাকবে তো?

বিশ্বকাপের বাকি আর কয়েক মাস। প্রতিটি সীমিত ওভারের সিরিজই বিশ্বকাপের প্রস্তুতি। সব দলের কাছেই তাই। সেরা কম্বিনেশন খুঁজে নেওয়ার সময়। হঠাৎ বিতর্কে প্রস্তুতিতে কিছুটা হলেও ধাক্কা ভারতীয় শিবিরে। একটি টিভি শোয়ে আপত্তিকর মন্তব্যের জেরে দেশে পাঠানো হচ্ছে লোকেশ রাহুল এবং হার্দিক পান্ডিয়াকে। লোকেশ রাহুল দলে তৃতীয় ওপেনার। হার্দিকের জায়গা প্রথম একাদশে নিশ্চিত ছিল বলাই যায়। বিশ্বকাপের ভেন্যু ইংল্যান্ড ও ওয়েলস। সেখানকার পিচ, পরিবেশ, পরিস্থিতিতে একজন মিডিয়াম পেসার অলরাউন্ডার থাকা মানে যে কোনও দলের বাড়তি সুবিধা। সেই কম্বিনেশনের বেশ কিছুটা প্রস্তুতি সম্ভব হত অস্ট্রেলিয়ায়। তা হচ্ছে না।

সিরিজের প্রথম একদিনের ম্যাচে একাদশ বাছাই নিয়ে নানান অঙ্ক কাজ করবে কোহলির মাথায়। ব্যাটিং অর্ডারে শুরুতে রোহিত-ধাওয়ান জুটি। তিনে কোহলি নিজে। চারে অম্বতি রায়াডু। পাঁচ, ছয়ে যথাক্রমে কেদার যাদব, মহেন্দ্র সিং ধোনি। হার্দিক থাকলে দুই বিশেষজ্ঞ পেসার নিয়ে খেলতে পারত ভারত। এখন সম্ভাবনা বলছে ভুবনেশ্বর কুমার, খলিল আহমেদ এবং মহম্মদ সামি এই তিন পেসারকে খেলানো হতে পারে। দুই স্পিনার খেললে কুলদীপ যাদব-যুজবেন্দ্র চাহল। সেক্ষেত্রে ব্যাটিংয়ের গভীরতা কমবে। অতিরিক্ত ব্যাটসম্যান হিসাবে দীনেশ কার্তিককে খেলানো হতে পারে। আবার চাহলের পরিবর্তে অলরাউন্ডার রবীন্দ্র জাদেজা। টেস্টে সিডনির পিচে স্পিনারদের সাহায্য ছিল। একদিনের ম্যাচের আগের পিচে বেশ খানিকটা ঘাস দেখা গেল। যাতে তিন পেসার, দুই স্পিনারের বোলিং কম্বিনেশন বেছে নেওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। সাংবাদিক সম্মেলনে ভারত অধিনায়ক কোহলি জানালেন, প্রয়োজনে হার্দিকের জায়গায় অলরাউন্ডার হিসাবে খেলানো হতে পারে জাদেজাকে। পার্টটাইম স্পিনার হিসাবে থাকছেন কেদার যাদব। সেক্ষেত্রে একজন অতিরিক্ত ব্যাটসম্যান হিসেবে দীনেশ কার্তিককে খেলানোর সম্ভাবনা থাকছে। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে এই সিরিজে বাড়তি নজর থাকবে মহেন্দ্র সিং ধোনির ব্যাটিং পারফরম্যান্সের ওপর। সাম্প্রতিক সময়ের ভারতের মিডল অর্ডার সেভাবে ভরসা দিতে ব্যর্থ। শেষ টি২০ একদিনের ম্যাচে ২৭৫ রান করেছেন ধোনি। ব্যাটিং গড় ২৫। অর্ধশতরানের গণ্ডিও পেরোতে পারেননি মাহি। স্ট্রাইকরেট ৭২’র কাছাকাছি। কেরিয়ার বিচার করলে অনেকটাই (প্রায় ৮৮) ব্যবধান। ধোনির সেই ফিনিশার ক্যারিশমা উধাও। ভারতীয় শিবিরে যা অস্বস্তির জায়গা। গত এক-দেড় বছর সবচেয়ে ব্যাটিং কম্বিনেশনে সবচেয়ে বেশি পরীক্ষা হয়েছে চার নম্বর জায়গা নিয়ে। এশিয়া কাপ থেকে চার নম্বরে এখনও অবধি তুলনামূলকভাবে ভরসা দিয়েছেন অম্বতি রায়াডু। সামনের দুই সিরিজে ধারাবাহিকতা দেখাতে পারলে চিন্তা কমবে কোহলির।

অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ এদিনই তাঁর একাদশ ঘোষণা করেছেন। স্মিথ, ওয়ার্নারহীন অসি ব্যাটিং লাইন আপে অভিজ্ঞতা তুলনামূলক কম। তেমনই বোলিংয়ে বিশ্রাম দেওয়া হয়েছে জশ হ্যাজলউড, প্যাট কামিন্স ও মিচেল স্টার্ককে। শনিবার প্রথম ম্যাচে একমাত্র স্পিনার হিসেবে ফিঞ্চের একাদশে রয়েছেন অভিজ্ঞ নাথান লিয়ন। ২০১০’র অবশেষে একদিনের ক্রিকেটে ফিরছেন পেসার পিটার সিডল। অধিনায়ক ফিঞ্চের সঙ্গে ওপেন করবেন উইকেটকিপার অ্যালেক্স ক্যারি। এরপর উসমান খোয়াজা, শন মার্শ, পিটার হ্যান্ডসকম্ব। থাকছেন দুই অলরাউন্ডার গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ও মার্কাস স্টইনিস। প্রয়োজনে পার্টটাইম স্পিনার হিসাবে ভরসা দিতে পারবেন ম্যাক্সওয়েল। টি২০ ফরম্যাটে সাফল্যের পর এবার একদিনের সিরিজে ভরসা দেওয়ার পালা জেসন বেহরনডর্ফের।



অস্ট্রেলিয়া : ভারত

সকাল ৭.৫০ (ভারতীয় সময়)

সরাসরি সোনি সিক্সে



Current Affairs

Featured Posts

Advertisement