রেশন কার্ডের দাবিতে রাঁচিতে
বি ডি ও অফিস ঘেরাও পার্টির

সংবাদ সংস্থা

রাঁচি, ১৭ই জুলাই- রাজ্যের সব গরিব মানুষকে রেশন কার্ড দেওয়ার দাবি জানালো সি পি আই (এম)। মঙ্গলবার রাঁচির রতুতে এই দাবিতে বি ডি ও অফিস ঘেরাও করে পার্টি। খাদ্য সুরক্ষা এবং সর্বজনীন গণবণ্টন ব্যবস্থার দাবিতে দেশজুড়ে প্রচারের অঙ্গ হিসেবে এদিন এই কর্মসূচী পালিত হয়েছে রাঁচিতে। টানা প্রায় চার ঘন্টা ঘেরাওয়ের পর এক মাসের মধ্যে রেশন কার্ড দেওয়ার আশ্বাস দিতে বাধ্য হয় প্রশাসন।

এদিন কর্মসূচীতে অংশ নেন প্রায় দুহাজার মানুষ। তাঁদের অনেকেই মহিলা। রেশন কার্ডের দাবিতে সোচ্চারে স্লোগান ওঠে জমায়েতে। বিক্ষোভ অবস্থানে পার্টি পলিট ব্যুরো সদস্য বৃন্দা কারাত বলেন, রাজ্যের বহু গরিবকে দেওয়া হয়নি রেশন কার্ড। কম দামে চাল পাচ্ছেন না তাঁরা। সরকারের আশ্বাসের পরিপ্রেক্ষিতে ঘেরাও তুলে নেয় পার্টি। কারাত বলেন, প্রতিশ্রুতি পালন না করা হলে ফের ঘেরাও করতে বাধ্য হবে পার্টি। কেন্দ্রের বিরুদ্ধে ক্ষোভ জানিয়ে তিনি বলেন, সরকারী গুদামে পচছে আট কোটি টন খাদ্যশস্য। অথচ, দেশের ক্ষুধার্ত মানুষকে রেশনের মাধ্যমে শস্য দিতে নারাজ কেন্দ্রের কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন সরকার। তিনি বলেন, গরিব চিহ্নিত করার ক্ষেত্রে যোজনা কমিশনের মাপকাঠি অবাস্তব। তাই প্রয়োজন সর্বজনীন গণবণ্টন ব্যবস্থা। উল্লেখ্য, ঝাড়খণ্ডে গরিব মানুষের প্রায় অর্ধেককে দেওয়া হয়নি বি পি এল কার্ড। খাদ্যশস্য উৎপাদনে ঘাটতিতে থাকা এই রাজ্যে কেন্দ্রের বরাদ্দও প্রয়োজনের তুলনায় কম। রাজ্যের বি জে পি সরকারের সমালোচনায় পার্টি রাজ্য সম্পাদকমণ্ডলী সদস্য সুধীর দাশ বলেন, গরিব মানুষের সমস্যা বুঝতে নারাজ রাজ্য। প্রতি মাসে কিলোপ্রতি ১টাকা দামে ৩৫কিলো চাল সব গরিব পরিবারের জন্য বরাদ্দ করা জরুরী।

এদিন, প্রশাসনের পক্ষ থেকে ২০শে আগস্টের মধ্যে রেশন কার্ড দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে। বি ডি ও রবীন্দ্র কুমার জমায়েতে ঘোষণা করেন, যে বি পি এল তালিকায় নাম না থাকা গরিব মানুষকে চিহ্নিত করতে কমিটি গড়া হবে বলে জানিয়েছেন জেলা কালেক্টর। এক মাসের মধ্যে কার্ড দেওয়া হবে।