আজকের দিনে



 

ছবির খাতা

জনতার ব্রিগেড

আরো ছবি

ভিডিও গ্যালারি

Video

শ্রদ্ধাঞ্জলি

আন্তর্জাতিক

 

শতবর্ষে শ্রদ্ধা

আপনার রায়

গরিবের পাশে থেকেছে বামফ্রন্টই

হ্যাঁ
না
জানি না
 

ই-পেপার

Back Previous Pageমতামত

দুর্গাপুরে সি পি আই (এম) দপ্তরে
সশস্ত্র তৃণমূলী হামলা, তাণ্ডব

নিজস্ব সংবাদদাতা

দুর্গাপুর, ৫ই আগস্ট — রবিবার দুর্গাপুরে সি পি আই (এম)-র দুর্গাপুর ২পূর্ব ও দুর্গাপুর ২ পশ্চিম জোনাল দপ্তর শহীদ বিমল দাশগুপ্ত ভবনে পরিকল্পিত হামলা চালালো তৃণমূলী দুষ্কৃতী বাহিনী। তৃণমূলীরা ছিল সশস্ত্র। কারো হাতে ছিল আগ্নেয়াস্ত্র, কারো হাতে রড, লাঠি। এরা সংখ্যায় ছিল ২৫/৩০ জন। তৃণমূলীদের হামলায় সাংসদ অধ্যাপক সাইদুল হক, আউশগ্রামের বিধায়ক বাসুদেব মেটেসহ ৪ জন আক্রান্ত হয়েছেন। পার্টিকর্মী অপরাজিত ব্যানার্জিকে ঘিরে ধরে বেদম প্রহার করা হয়। পার্টিনেতা শ্যামা ঘোষকে পিস্তল উঁচিয়ে পার্টি দপ্তর থেকে রাস্তায় এনে ফেলা হয়। পার্টি দপ্তরে যথেচ্ছ ভাঙচুর চালিয়েছে তৃণমূলী দুষ্কৃতীরা। টেবিল, চেয়ার, কাচ ভাঙা হয়েছে যথেচ্ছ। মহিলাদেরও রেয়াত করেনি দুষ্কৃতীরা। চেয়ারে বসে থাকা মহিলাদের ধাক্কা মেরে ফেলে লাঠি পেটা করা হয়। দেওয়ালে টাঙানো সুভাষচন্দ্র বসুর ছবি টেনে নামিয়ে আছাড় মেরে ভেঙে ফেলে তৃণমূলী বাহিনী। মুখে ছিল ছাপার অযোগ্য ভাষার গালিগালাজ। এই দুর্গাপুরেই সাতের দশকে আধা ফ্যাসিবাদী সন্ত্রাসের দিনে বিদ্যালয়ে ছাত্রদের পাঠদান করাবার সময় চেয়ারে বেঁধে পুড়িয়ে মারা হয়েছিল শিক্ষক বিমল দাশগুপ্তকে। তাঁর নামেই পার্টির জোনাল ভবন। শহীদ বিমল দাশগুপ্তের প্রতিকৃতি দেওয়াল থেকে নামিয়ে আছড়ে ভেঙে উল্লাসে মেতে ওঠে তৃণমূলীরা।

সি পি আই (এম)-র বর্ধমান জেলা কমিটির সম্পাদক অমল হালদার তৃণমূলের দুষ্কৃতী বাহিনীর এই পরিকল্পিত তাণ্ডবের তীব্র নিন্দা করেছেন। তিনি দোষীদের গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছেন। সোমবার জেলার সর্বত্র প্রতিবাদ মিছিল করার ডাক দিয়েছে পার্টির বর্ধমান জেলা কমিটি।

এদিনই তৃণমূলী তাণ্ডবের জবাব দেবার জন্য গর্জে উঠেছে দুর্গাপুর। জোনাল দপ্তর আক্রান্ত হয়েছে এই খবর ছড়িয়ে পড়ে দুর্গাপুরে। দলে দলে মানুষ ছুটে আসেন জোনাল দপ্তরে। মানুষের তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ার প্রতিবাদ মিছিল বের হয়। রাজপথে মিছিলে শামিল হয় অসংখ্য মানুষ। এমন মানুষও ছিলেন যাঁরা এর আগে কখনও লালপতাকার মিছিলে পা মেলাননি। মিছিলের ঘোষণা ছিল—এ অরাজকতা আর নয়। রুখতেই হবে।

এদিন ছিল দুর্গাপুর মহিলা পরিচালিত সমবায় ব্যাঙ্কের নির্বাচন। মোট ৯ আসনের জন্য ভোটগ্রহণ করা হচ্ছিল সিটি সেন্টারে বিদ্যাসাগর স্কুলে। বেনাচিতি অঞ্চলের ৭ জন প্রার্থী, সিটি সেন্টারের ২ জন প্রার্থী ছিলেন প্রতিদ্বন্দ্বিতায়। সমবায়ের মোট ৪৬টি আসনের মধ্যে বামপন্থী প্রগতিশীল শিবিরের ৩৭ জন প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। তৃণমূল ৩৭টি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য প্রার্থী খুঁজে পায়নি। বামপন্থী প্রগতিশীল শিবিরের ২ জন প্রার্থীকে ভয় দেখিয়ে জোর করে বসিয়ে দেয় তৃণমূলীরা। ভোটগ্রহণ কেন্দ্রে তৃণমূলের কাউন্সিলর চন্দন সাহার নেতৃত্বে বহিরাগতদের জড়ো করে গণ্ডগোল বাধানো হয়। লাইনে দাঁড়ানো ‍‌ভোটদাতা মহিলাদের ধাক্কা মেরে সরিয়ে দেয়। পোলিং এজেন্টদের বুথ থেকে বের করে দেয়। পুলিস ছিল নীরব দর্শকের ভূমিকায়। ভোটের লাইনে দাঁড়ানো মহিলারা প্রতিবাদ করেন। এরপর পুলিস আসে। তৃণমূলীরা পুলিসের উপস্থিতিতেই বুথ দখল অব্যাহত রাখে। পুলিসকে লক্ষ্য করে ইট ছোঁড়ে। তৃণমূলীদের ইটে পুলিসের ওসি অরূপ সরকারের মাথা ফাটে। পুলিস লাঠি চালায়। ঘটনাস্থল থেকে পুলিস ১৫ জনকে গ্রেপ্তার করে।

এরপরই বেলা সওয়া ২টা নাগাদ সশস্ত্র তৃণমূলীরা চড়াও হয় সি পি আই (এম) জোনাল দপ্তরে। জোনাল দপ্তরে হামলার মুখে আসেন সাংসদ সাইদুল হক, বিধায়ক বাসুদেব মেটে, পার্টিনেতা বীরেশ্বর মণ্ডলরা। পানাগড়ে জাতীয় সড়ক ছয় লেন করার নিয়ে পূর্ব নির্ধারিত বৈঠকে যোগ দিতে এসেছিলেন তাঁরা। সাংসদ, বিধায়ক ও নেতৃবৃন্দ তৃণমূলীদের হাতে আক্রান্ত হন। সাংসদের নিরাপত্তারক্ষীর তৎপরতায় সাংসদ বড় ধরনের আঘাত পাওয়া থেকে রক্ষা পান।

এদিকে হামলার পরও তৃণমূলীরা পরাজিত হয়েছে এই খবর ছড়িয়ে পড়ে। দলে দলে মানুষ রাস্তায় নামেন। তৃণমূলীদের বিরুদ্ধে ঘৃণা-ধিক্কার প্রদর্শিত হয়।

যে ৯টি আসনে নির্বাচন হয়েছিল তার ৭টি বামপন্থী-প্রগতিশীল প্রার্থীরা বিপুল ভোটের ব্যবধানে জয়ী হয়েছেন। সিটি সেন্টারের মোট ২টি আসন ছিল, জয়ী হয়েছেন বামপন্থী-প্রগতিশীল প্রার্থী। বেনাচিতিতে ৭টি আসন ছিল। ৫টিতে জয়ী হয়েছেন বামপন্থী প্রগতিশীলরা। এদিন সন্ধ্যায় বিমল দাশগুপ্ত ভবনে সাংবাদিক সম্মেলন করে পার্টি নেতৃবৃন্দ জানান, তৃণমূলীদের হামলার কাছে মাথা নত করবে না দুর্গাপুরের সচেতন মানুষ।

সোমবার দুর্গাপুরে পুলিস কমিশনারেটের দপ্তরে বিক্ষোভ ডেপুটেশন হবে। ৮ই আগস্ট মহকুমা শাসকের দপ্তরে বিক্ষোভ দেখানো হবে। এদিন জেলার বিভিন্ন স্থানে এই ঘটনার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে মিছিল ও প্রতিবাদ কর্মসূচী সংগঠিত হয়েছে।

মতামত
এই খবরটি সম্পর্কে আপনার মতামত
 

আমাদের এই খবরটি সম্পর্কে আপনার মতামত পেলে বাধিত থাকব। তবে যথাযথ যাচাই না করে ২৪ঘন্টার আগে আপনার মতামত ওয়েবসাইটে দেখা যাবে না।

Top
 
Name
Email
Comment
For verification please enter the security code below