ওলিম্পিয়ানদের চাকরির
প্রস্তাব দেওয়া হবে সাইতে

সংবাদ সংস্থা

নয়াদিল্লি, ৮ই আগস্ট — ভারতের সকল ওলিম্পিয়ানদের স্পোর্টস অথরিটি অব ইন্ডিয়ায় (সাই) অফিসার পদে চাকরির প্রস্তাব দেওয়া হবে। এদিনই এমন খবর জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় ক্রীড়ামন্ত্রী অজয় মাকেন। বুধবার পর্যন্ত ভারতের ওলিম্পিক্স থেকে মোট চারটি পদক এসেছে। শুধুমাত্র পদকজয়ীদেরই নয়, পাশাপাশি যাঁরা দেশের হয়ে অতীতে বা এবার লন্ডন গেমসে অংশ নেন, তাঁদের প্রত্যেককেই চাকরির প্রস্তাব দেওয়া হবে। এই মর্মে ক্রীড়ামন্ত্রক থেকে সংবাদপত্রে বিজ্ঞাপন বা নিজেদের ওয়েবসাইটে বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হবে। তারপরেই ক্রীড়াবিদরা আবেদন করতে পারবেন। ক্রীড়ামন্ত্রী বলেন, দেশের অন‌্যান্য অ্যাথলিটদের সঙ্গে ওলিম্পিয়ানদের মিলিয়ে ফেললে চলবে না, তাঁরা বিশেষ সুবিধে পাবেন।

জটিলতা হচ্ছে সেনাবাহিনীর সুবেদার পদে কর্মরত বিজয় কুমারের পদক পাওয়ার পরেই। এমনিতেই গত ছয়বছরে সেনাবাহিনীতে কারোরই পদোন্নতি হয়নি। এমনকি ক্রীড়াবিদদের ক্ষেত্রেও নিয়মের ব্যতিক্রম হয়নি। বিজয় কুমার হুমকি দিয়ে জানিয়েছেন, তাঁকে যদি এবার পদোন্নতির নির্দেশ না দেওয়া হয়, সেক্ষেত্রে তিনি চাকরি থেকে বিদায় নেবেন। তিনি বিষয়টি মাকেনকে জানিয়েছেন, ক্রীড়ামন্ত্রী এই নিয়ে আলোচনা করেছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী এ কে অ্যান্টনির সঙ্গে। বিজয় কুমারই শুধু নন, ভারতের বাকি ওলিম্পিয়ানদের ব্যাপারেও সদর্থক আলোচনা হয়েছে।

এদিকে, জাতীয় রাইফেল সংস্থার তরফ থেকে দেশের দুই শ্যুটার বিজয় কুমার ও গগন নারাঙকে যথাক্রমে ২০ ও ১৫লক্ষ টাকা পুরস্কার অর্থমূল্য ঘোষণা করা হয়েছে। সভাপতি রানিন্দর সিং এক বার্তায় বলেছেন, সফল দুই শ্যুটারকে খুব শীঘ্র এক অনুষ্ঠানে এই চেক তুলে দেওয়া হবে। দেশ থেকে ওলিম্পিক্সে গিয়েছিলেন মোট ১১জন শ্যুটার। নারাঙ, বিন্দ্রা, বিজয় কুমার দেশে ফিরে এসেছেন। বাংলার জয়দীপ কর্মকার বৃহস্পতিবার দিল্লি হয়ে সকালে কলকাতায় পৌঁছাবেন। রঞ্জন সোধী ও মানবজিৎ সিং লন্ডন থেকে ইতালিতে চলে গেছেন এক আমন্ত্রণী টুর্নামেন্টে অংশ নিতে। মহিলা শ্যুটাররাও দেশে চলে এসেছেন।