কেন্দ্রের নীতির প্রতিবাদে দিল্লিতে
অনশনে প্রতিরক্ষা শিল্পের শ্রমিকরা

নিজস্ব সংবাদদাতা

নয়াদিল্লি, ১৭ই জুলাই — কেন্দ্রের মোদী সরকারের নীতির বিরুদ্ধে দিল্লির যন্তরমন্তরের পাশে রিলে অনশন ধর্মঘটে নেমেছেন দেশের প্রতিরক্ষা শিল্পের শ্রমিক কর্মচারীরা। ‘আচ্ছে দিন’-এর নামে মোদী সরকার দেশের প্রতিরক্ষা শিল্পের ওপর ভয়ংকর আঘাত নামিয়ে এনেছে। ইছাপুর রাইফেল, মেটালসহ দেশের চারটি অর্ডিনান্স ফ্যাক্টরিকে বেসরকারিকরণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে মোদী সরকার। অর্ডিনান্স ফ্যাক্টরিকে বাঁচানোর দাবিতে প্রতিরক্ষা শিল্পের শ্রমিক কর্মচারীরা একযোগে রাস্তায় নেমে আন্দোলন শুরু করেছেন।

অল ইন্ডিয়া ডিফেন্স এমপ্লয়িজ ফেডারেশনের অন্তর্গত দেশের চারশো ত্রিশটি ইউনিয়ন কেন্দ্রের মোদী সরকারের বিরুদ্ধে লাগাতার অনশন ধর্মঘটে দিল্লির যন্তরমন্তরে বসেছেন। সোমবার ইছাপুর অর্ডিনান্স ফ্যাক্টরি মজদুর ইউনিয়ন ও দমদম, কাশীপুর মজদুর ইউনিয়ন এই ধরনামঞ্চে যোগ দেন। গত ৩রা জুলাই থেকে এই রিলে অনশন ধর্মঘট শুরু হয়েছে।

সোমবার ধরনামঞ্চে সি আই টি ইউ সর্বভারতীয় নেতা স্বদেশ দেবরায় বলেন, কেন্দ্রের মোদী সরকার ‘মেক ইন ইন্ডিয়া’র নামে শ্রমিক কর্মচারীদের ওপর ভয়ংকর আঘাত নামিয়ে এনেছে। এই সরকার কর্পোরেট বান্ধব মনোভাবকে অগ্রাধিকার দিয়ে একের পর এক ক্ষতিকারক সিদ্ধান্ত নিয়ে চলেছে। দেশের প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে ১০০ শতাংশ এফ ডি আই যা দেশের নিরাপত্তার ক্ষেত্রে বিপজ্জনক। দেশের প্রতিরক্ষা শিল্পে শ্রমিক কর্মচারীদের এই আন্দোলনকে সি আই টি ইউ নীতিগতভাবে সমর্থন জানাচ্ছে। আগামী ৮ই আগস্ট দিল্লির তালকোটরা স্টেডিয়ামে সমস্ত কেন্দ্রীয় ট্রেড ইউনিয়নগুলোর কনভেনশন হবে। সেই কনভেনশন থেকে আগামীদিনে লড়াই আন্দোলনের রূপরেখা তৈরি হবে।

এ আই ডি ই এফ-র সভাপতি এম এন পাঠক বলেন, প্রতিকূলতার মধ্য দিয়ে এই রিলে অনশন চলছে। কেন্দ্রের মোদী সরকার ১৪৩টি উৎপাদন অর্ডিনান্স ফ্যাক্টরির হাত থেকে নিয়ে প্রাইভেট কোম্পানিগুলোকে উৎপাদনের জন্য দেওয়া হয়ে‍‌ছে নন কোর আটটেম-এর নামে। এর ফলে দশটা অর্ডিনান্স ফ্যাক্টরির ওপর প্রত্যক্ষভাবে আঘাত নেমে এসেছে।

এ আই ডি ই এফ-র সাধারণ সম্পাদক বিজন গুহঠাকুরতা বলেন, কেন্দ্রের মোদী সরকার অর্ডিনান্স ফ্যাক্টরিগুলোকে শক্তিশালী ও উন্নততর প্রযুক্তিতে শক্তিশালী করার পরিবর্তে তাদেরকে দুর্বল করে কর্পোরেটদের হাতকে শক্তিশালী করছে। ভারতবর্ষে অস্ত্র তৈরি করবে প্রাইভেট বেসরকারি সংস্থা। এটা দেশের নিরাপত্তার ক্ষেত্রে বিপজ্জনক। প্রতিটি দেশপ্রেমী মানুষকে প্রতিরক্ষা শিল্পের কর্মচারীদের এই আন্দোলনের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান।

এ আই ডি ই এফ-র সম্পাদক শ্রীকুমার বলেন, দেশের প্রতিরক্ষা শিল্পের ওপর এতবড় আঘাত-এর আগে কোনওদিন আসেনি। এটা দেশের সার্বভৌমত্বের ওপর আঘাত।

এদিনের দিল্লির ধরনামঞ্চে ইছাপুর রাইফেল, মেটালসহ প্রতিরক্ষা শিল্পের ব্যাপক অংশের কর্মচারী অংশগ্রহণ করেন।

Featured Posts

Advertisement