মৃত গৃহবধূর বাড়িতে
মহিলা নেত্রীবৃন্দ

নিজস্ব সংবাদদাতা

মধ্যমগ্রাম, ১২ই আগস্ট— রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলায় এম এ পাশ করার পর দমদমের গৃহবধূ শ্রাবন্তী মিত্র গবেষণা করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু শ্বশুরবাড়ির আপত্তি ছিল। তাই তাঁকে মরতে হয়েছে। এটা দুর্ঘটনা, নাকি এর পেছনে কোন ষড়যন্ত্র আছে, তা ময়না তদন্তের রিপোর্ট বলবে। কিন্তু শ্রাবন্তীর বাবা-মায়ের ধারণা, শ্রাবন্তীকে মেরে ফেলা হয়েছে। দমদম থানার পুলিশও অস্বাভাবিক মৃত্যুর রিপোর্ট দায়ের করেছে। এই ঘটনায় মৃত গৃহবধূর স্বামী বিশ্বদেব মিত্রকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। কিন্তু শ্রাবন্তীর বাড়ির লোকজন চাইছে এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত শ্বশুড়বাড়ির অনান্যরা গ্রেপ্তার হোক। কারণ শ্রাবন্তীর সামনেই তাঁর মা ও বোনকে অপমান করেছিল তাঁর শাশুড়ি। এই অপমান হয়তো তাঁর মনে দাগ কেটেছিল।

শনিবার মধ্যমগ্রামের রোহণ্ডা চণ্ডীগড়ে শ্রাবন্তীদের বাড়িতে গিয়েছিলেন সারা ভারত গণতান্ত্রিক মহিলা সমিতির উত্তর ২৪পরগনা জেলার নেত্রীবৃন্দ। তাঁরা মৃত শ্রাবন্তীর বাবা, মা এবং পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেন। ঘটনার নিন্দা এবং অপরাধীদের শাস্তির পাশাপাশি তাঁরা আইন পরিষেবার প্রতিশ্রুতি দেন। ছিলেন সংগঠনের সভানেত্রী সোমা দাশ, সম্পাদিকা আত্রেয়ী গুহ, পাপড়ি দত্ত, স্মৃতি করসহ অন্যান্য নেত্রীবৃন্দ।