সোপিয়ানে ৩ সন্ত্রাসবাদীর মৃত্যু,
বান্দিপোরায় জখম দুই পুলিশ

সংবাদসংস্থা

শ্রীনগর, ১৩ই আগস্ট— দীর্ঘ কয়েকঘণ্টা গুলির লড়াইয়ের পর রবিবার সকালে কাশ্মীরে মৃত্যু হয়েছে দুই সন্ত্রাসবাদীর। দক্ষিণ কাশ্মীরের সোপিয়ানে শনিবার থেকে শুরু হয়েছে গুলির লড়াই। সেদিনই প্রাণ হারান দুই সেনা জওয়ান, জখম হন আরও দু’জন। রাতভর গুলির লড়াই চলার পর রবিবার সকালে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে মৃত্যু হয়েছে তিন সন্ত্রাসবাদীরও। সেনাবাহিনী সূত্রে খবর, সন্ত্রাসবাদীদের মৃত্যুর কয়েকঘণ্টার মধ্যেই ফের গুলির লড়াই শুরু হয় দক্ষিণ কাশ্মীরের সোপিয়ানে। রবিবার রাত পর্যন্ত পাওয়া খবর অনুযায়ী, জাইনাপোরায় গুলির লড়াই থামেনি।

প্রাথমিকভাবে গুলির লড়াই বন্ধ হওয়ার পর ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালায় নিরাপত্তা বাহিনী। সেইসময়ই ফের সন্ত্রাসবাদীরা গোপন ডেরা থেকে গুলি ছুঁড়তে শুরু করে, জানিয়েছে পুলিশ। এই জাইনাপোরাতেই শনিবার চলে দু’পক্ষের গুলির লড়াই। সেখানেই তিন সন্ত্রাসবাদী প্রাণ হারায়। তবে নিহত সন্ত্রাসবাদীদের পরিচয় জানা যায়নি। তারা কোন সন্ত্রাসবাদী গোষ্ঠীর সঙ্গে জড়িত ছিল সে বিষয়ে খোঁজ নেওয়া হচ্ছে, জানান ডি জি পি।

গোপন সূত্রে সন্ত্রাসবাদীদের উপস্থিতির খবর পেয়ে শনিবার জাইনাপোরার অভনীরা গ্রামে তল্লাশি অভিযান শুরু করে নিরাপত্তাবাহিনী। জওয়ানদের দেখতে পেয়েই সন্ত্রাসবাদীরা গুলি চালানো শুরু করলেই পালটা গুলি চালায় নিরাপত্তাবাহিনীও। শনিবার জখম পাঁচ জওয়ানকে সেনাবাহিনীর ৯২ বেস হসপিটালে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানেই মৃত্যু হয় দুজনের— তামিলনাডুর ইলায়ারাজা পি এবং মহারাষ্ট্রের গাওয়াই সুমেধ ওয়ামান।

এদিকে, উত্তর কাশ্মীরের বান্দিপোরায় রবিবার নিরাপত্তাবাহিনীর তল্লাশি অভিযান চলাকালীন সন্ত্রাসবাদীদের গুলিতে দুজন পুলিশ কর্মীর আহত হওয়ার খবর পাওয়া গিয়েছে। রাজ্য পুলিশের বিশেষ অপারেশন গ্রুপ এবং সি আর পি এফ যৌথভাবে বান্দিপোরার হাজানে এদিন অভিযান চালায় সন্ত্রাসবাদীদের ঘাঁটির খবর পেয়ে। নিরাপত্তাবাহিনী দুটি গ্রাম বাজেয়াপ্ত করলে গোপন ডেরা থেকে স্বয়ংক্রিয় অস্ত্রের মাধ্যমে গুলি চালায় সন্ত্রাসবাদীরা। জখম দুই পুলিশকর্মী মুখতার আহমেদ এবং মহম্মদ আশরাফ সেনা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। জানা গিয়েছে, ওই এলাকায় দুজন বা তিনজন সন্ত্রাসবাদী লুকিয়ে রয়েছে। অতিরিক্ত পুলিশ বাহিনী গোটা এলাকা ঘিরে তল্লাশি চালাচ্ছে, রবিবার রাত পর্যন্ত পাওয়া খবরে জানা গিয়েছে। বিক্ষোভ এড়াতে কড়া নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে। পুলিশের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, ১৩ রাষ্ট্রীয় রাইফেল এবং পুলিশ রবিবার দুপুরে বান্দিপোরার হাজানের ওয়াহাবে অভিযান চালায়।

Featured Posts

Advertisement