Black Market of Fertilizers

সারের কালোবাজারি রুখতে ডেপুটেশন

রাজ্য

Black Market of Fertilizers

রবি মরশুমের শুরুতে সারের কালোবাজারিতে জেরবার কৃষক সমাজ। শুরু হয়েছে আলু, সরষে, মুসুরি সহ বিভিন্ন শাক সবজি‌র চাষ। প্রয়োজন প্রচুর রাসায়নিক সার। সেই সার এম আর পি ছাড়াও একশ্রেণীর অসাধু ব্যবসায়ী ডি এ পি সুফলা সার ১৪৫০ টাকা বস্তার(৫০কেজি) পরিবর্তে বিক্রি করছে ২ হাজার ১০০ টাকায়। এমতবস্থায় সারের কালোবাজারি রুখতে অবিলম্বে অসাধু সার ব্যবসায়ীদের চিহ্নিত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে হবে এবং সঠিক মূল্যে সার সরবরাহের ব্যবস্থা করা সহ ৮ দফা দাবিতে বৃহস্পতিবার রাস্তায় নেমে অবস্থান বিক্ষোভে সামিল হয় বসিরহাট ২নম্বর ব্লকের ৯টি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার কৃষক, খেতমজুররা। সেই সাথে তারা ডেপুটেশন দেয় বিডিও জয়দীপ চক্রবর্তী এবং এডিও হাসিম রেজার  কাছে।

 


সারাভারত কৃষকসভা বসিরহাট ২ নম্বর ব্লকের উদ্যোগে সারের কালোবাজারি বন্ধ করে, সমবায়গুলির মাধ্যমে ন্যায্য মূল্যে কৃষকদের সরবরাহ করা, সহায়ক মূল্যে ধান ক্রয় করা এবং চাঁপাপুকুর ও রাজেন্দ্রপুর অঞ্চলের খাল এবং খোলাপোতার ভদ্রখালি খাল সংস্কার,বি এল ও এল আর ও অফিসের সীমাহীন দুর্নীতি, এলাকার বিভিন্ন রাস্তা সংস্কার, পানীয়জলের দাবিতে এবং সেই সাথে বুধবার বকেয়া ডি এ'র দাবিতে বিধানসভা অভিযানে সরকারি কর্মচারী ও পেনশনারদের উপর পুলিশি নির্যাতনের নিন্দা জানিয়ে অবিলম্বে বকেয়া ডি এ পরিশোধের আওয়াজ তুলে মিছিল হয় খোলাপোতা মোড় থেকে। মিছিল টাকীরোড ধরে আসে বিডিও অফিস সংলগ্ন এলাকায়। সেখানে অবস্থান ও বিক্ষোভ সভা শুরু হয়। 


সভাপতিত্ব করেন কৃষক নেতা গোপাল মল্লিক। দাবি সনদ পাঠ করে শোনান আবদুল্লা মোল্লা। দাবিগুলির সমর্থনে বক্তব্য রাখেন কৃষক নেতা সুবিদ আলি গাজি, ফকির আহমেদ, প্রনব দাস। বিক্ষোভ সভা চলাকালীন ডেপুটেশনে যান কৃষক নেতা গোপাল মল্লিক, ফকির আহমেদ, আমির আলি, আবদুল্লা মোল্লা, খেতমজুর ইউনিয়নের নেতা তাইজুল হক ও শেখ শাহানুর রহমান। বিডিও, এডিও উভয়ই নেতৃবৃন্দকে জানান আমরা ইতিমধ্যে ৪ জন সারের ডিলারকে শোকজ করেছি। আরও কয়েকজনকে চিহ্নিত করা হয়েছে। দোষ প্রমাণিত হলে তাদের লাইসেন্স বাতিল করা হবে। সারের কালোবাজারি রুখতে সমস্তরকম পদক্ষেপ নেওয়ার আশ্বাস দেন তারা।  
 

0 Comments

Login to leave a comment