TMC Councillor

তাণ্ডব তৃণমূলের বান্টার, কেঁদে ফেললেন প্রধানশিক্ষক

রাজ্য

TMC Councillor তেলেগু বিদ্যাপীঠ স্কুল। অভিযোগ পত্র সহ আতঙ্কে কান্নায় ভেঙে পড়েছেন প্রধান শিক্ষক।

স্কুলের কমিটিতে প্রতিনিধি নির্বাচনে হারের পরই তাণ্ডব চালালেন তৃণমূলের কাউন্সিলর। ব্যালট ছিনতাই তো হলই। এমনই ভয়াবহ তাণ্ডব যে আতঙ্কে কেঁদে ফেললেন প্রধান শিক্ষক। খড়্গপুর শহরের তেলেগু বিদ্যাপীঠে প্রতিনিধি বা শিক্ষানুরাগী নির্বাচনে তৃণমূলের হামলায় ফের আতঙ্ক ছড়ালো শিক্ষাঙ্গণে। ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ রয়েছে এলাকায়। 
ঘটনায় ধিক্কার জানিয়েছেন সিপিআই(এম) রাজ্য সম্পাদক মহম্মদ সেলিম। সংবাদমাধ্যমের তরফে বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, তৃণমূলের নেতা হওয়ার যোগ্যতা হলো প্রধান শিক্ষককে ভয় দেখাতে পারে কিনা। কিছুদিন আগে মালদহের রতুয়ায় মাদ্রাসা নির্বাচনে পরাজিত হয় তৃণমূল। মিথ্যা মামলা সাজিয়ে পুলিশ সিপিআই(এম) কর্মীদের জেলে পুরে দেয়। খড়্গপুরেও দেখা দরকার পুলিশের ভূমিকা কী। ভাঙড়ে কলেজ শিক্ষিকাকে জগ ছুঁড়ে মারা নেতাকে সম্পদ বলেছিল তৃণমূল।

 

 


মঙ্গলবার ছিল খড়্গপুর শহরের তেলেগু বিদ্যাপীঠের পিআইই প্রতিনিধি বা শিক্ষানুরাগী নির্বাচন। প্রার্থী হয়েছিলেন ২ জন। একজন স্থানীয় কাউন্সিলর (১৫ নং ওয়ার্ডের) বান্টা মুরলীধর রাও। অপরজন এলাকারই প্রাক্তন শিক্ষক এম. কালি দাস। শিক্ষক, শিক্ষাকর্মী এবং অভিভাবক প্রতিনিধি মিলিয়ে ভোটদাতা ছিলেন ১২ জন। এর মধ্যে প্রধান শিক্ষক গোপন ব্যালটে ভোটদান করেছিলেন। অবর বিদ্যালয় পরিদর্শক বা এসআই’র উপস্থিতিতে প্রধান শিক্ষকের পরিচালনায় ভোট হয় নির্বিঘ্নে। 

 

 


তবে ফলাফলে হতাশ হতে হয় কাউন্সিলর বান্টা-কে! প্রধান শিক্ষকের গোপন ব্যালট ছাড়াই ৭-৪ ব্যবধানে পরাজিত হন তিনি। পরাজয় মেনে নিতে না পেরেই, তাঁর নির্দেশে বিদ্যালয়ে তাণ্ডব চালায় তৃণমূলের কর্মী সমর্থকরা। তৃণমূলের শহর সভাপতি সূর্যপ্রকাশ রাও ছিলেন বলেও অভিযোগ বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের। শুধু তাই নয়, ব্যালট বাক্স ছিনতাইয়ের অভিযোগও উঠেছে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কে রামচন্দ্র মূর্তি এই বিষয়ে খড়্গপুর টাউন থানায় অভিযোগও জানিয়েছেন।

 


এসবের পরোয়া না করে যদিও বান্টা মুরলী এই ফলাফল বাতিল করে ফের  নির্বাচনের জন্য চাপ দেয় প্রধান শিক্ষককে। এমন ঘটনা লিখিত ভাবে প্রধান শিক্ষক সহ বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ খড়্গপুর টাউন থানাতে অভিযোগও জানিয়েছেন। ঘটনার বিষয়ে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি ক্যামেরার সামনে হাউহাউ করে কেঁদে ফেলেন! স্বীকার করেন, তিনি আতঙ্কে আছেন।
 

0 Comments

Login to leave a comment