Sujan Chakroborty reaction

আন্দোলনকারী সরকারি কর্মচারীদের ওপর পুলিশি আক্রমনের প্রতিবাদে সিপিআই(এম)

কলকাতা

অধিকারের লড়াইতে নামলে তৃণমূলের পুলিশের কাছ থেকে কখন জুটছে কামড় আবার কখনও ঘুষি। বুধবার এমনই দৃশ্য দেখল কলকাতা। ডি’এ নিয়ে সরকারি কর্মচারীদের ওপর পুলিশি আক্রমন প্রসঙ্গে সিপিআই(এম) (cpim)কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সুজন চক্রবর্তী (Sujan Chakroborty) বলেন, ‘এরাজ্যের পুলিশ প্রশাসন এতো অসভ্য যে কেউ চাকরি চাইলে তাঁকে কামড়ে দেয়, অথবা আচঁড়ে দেয়, অথবা বুট দিয়ে মারে, অথবা ডি’এ দাবি করলে তাদের ঘুষি মারে। রসেবসে সরকার চলছে, ডিএর টাকা লোপাট করছে, নির্লজ্জের মতো কর্মচারীদের বিরুদ্ধে পুলিশকে লাগিয়ে দিচ্ছে। এর ফল ফলবে শীঘ্রই।’

 

প্রসঙ্গত বকেয়া ডিএ’র সঙ্গে তিন দফা দাবি নিয়ে বুধাবার উত্তপ্ত হয়ে ওঠে ধর্মতলা চত্বর। কো-ওর্ডিনেশন কমিটি সহ ৩০টি রাজ্য সরকারি কর্মচারি, শিক্ষক, শিক্ষিকাদের যৌথ মঞ্চের পক্ষ থেকে বিধানসভা অভিযানের ডাক দিয়েছিল। বিধানসভা অভিমুখে অভিযান করছিলেন তাঁরা। তখনই কর্মীদের ওপরই ঝাঁপিয়ে পড়ে তৃণমূল সরকারের পুলিশ। আন্দোলনকারীদের ঘিরে ধরে হাত ধরে ফেলে পেটে ঘুষি পর্যন্ত মারা হলো। আকাশবাণী ভবনের সামনে থেকে আন্দোনকারীদের দেদার ভ্যানে তুলতে থাকে পুলিশ। গ্রেপ্তার করা হয় আন্দোলনে নামা কর্মচারীদের। মৌলিক অধিকার চেয়ে আন্দোলনে নামা কর্মীদের ওপর রাজ্য সরকারের মনোভাব এবং পুলিশের হামলায় স্তম্ভিত গোটা রাজ্য। পুলিশের আচরণের তীব্র নিন্দা করেছেন বামফ্রন্ট নেতৃবৃন্দ।  কয়েকদিন আগে চাকরিপ্রার্থীদের আন্দোলন দমাতে নেমে কামড় বসিয়েছিল মমতা ব্যানার্জির পুলিশই।

 

 

ডিএ’র দাবিতে এদিন রাজ্য  তিন দফা দাবি সংগঠন গুলির পক্ষ থেকে রাখা হয়। তাদের দাবি অবিলম্বে বকেয়া ডিএ পরিশোধ করতে হবে, স্বচ্ছতার সাথে নিয়োগ করতে হবে এবং অস্থায়ী সরকারি কর্মীদের স্থায়ী নিয়োগ দিতে হবে। রাজ্যের কর্মচারীরা বলেছেন, ৬ষ্ঠ বেতন কমিশনের সুপারিশের হিসেবে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের  তুলনায় ৩৫ শতাংশ পিছিয়ে আছেন তাঁরা।  অন্য বহু রাজ্যে ডিএ বা মহার্ঘভাতার হার এ রাজ্যের তুলনায় বেশি। সরকারি কর্মচারিদের ওপর পুলিশের আক্রমনের প্রতিবাদে ও গ্রেপ্তার হওয়া কর্মীদের নিঃস্বর্ত মুক্তির দাবিতে দুপুর থেকে ধর্মতলা চত্বরে বসেই প্রতিবাদ দেখাতে থাকে আন্দোলনকারীরা। বিকেল গড়িয়ে সন্ধে হলেও সেখানেই বসে থাকেন। একটা সময়ে পুলিশ আশ্বাস দেয় যে গ্রেপ্তার হওয়া কর্মীদের ছেড়ে দেবে। আন্দোলনকারীরা যেন উঠে যান। পুলিশের দাবি মেনে আন্দোলনকারীরা উঠে গেলেও কর্মীদের এখনও পুলিশ ছাড়েনি বলেই অভিযোগ।  

0 Comments

Login to leave a comment