Iran-Wales match

ইরানের কাছে ২-০ গোলে হার ওয়েল্‌সের

খেলা

Iran-wales match 2 goal red card ওয়েল্‌সকে হারিয়ে উচ্ছ্বাসে মাতলেন ইরানের খেলোয়াড়রা

 ইরান! ২০২২ বিশ্বকাপে এই দল যেন মাঠে নামছেই  ইতিহাস সৃষ্টি করতে। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচে বল গড়ানোর আগেই আলোড়ন ফেলেছিলেন ইরানের খেলোয়াড়রা। দেশে ঘটে চলা রাষ্ট্রীয় অত্যাচারের প্রতিবাদে জাতীয় সঙ্গীত বয়কট করে গোটা ‘টিম ইরান’। দেশে ফিরে রাষ্ট্রীয় নিপীড়নের আশঙ্কা মাথায় নিয়েই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তাঁরা। 

বিশ্বকাপের দ্বিতীয় ম্যাচেও ইরানের খেলোয়াড়দের অফুরন্ত প্রাণশক্তির সাক্ষী থাকল গোটা বিশ্ব। শুক্রবার গ্যারেথ বেল সমৃদ্ধ ওয়েল্‌সকে ২-০ গোলে পরাজিত করলেন আলিরেজা জাহানবক্‌শরা। এই জয়ের ফলে গ্রুপ বি’র দ্বিতীয় স্থানে উঠে এলেন তাঁরা। পরের ম্যাচে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে হারাতে পারলেই কোয়ার্টার ফাইনাল একপ্রকার নিশ্চিত ইরানের। ইরানের হয়ে গোলদুটি করেন রুজবে চেশমি এবং রামিন রাজাইয়ান। এদিন আহমেদ বিন আলি ষ্টেডিয়ামে  মুখোমুখি হয় দুই দল।

এদিন গোটা ম্যাচ জুড়েই মাঝমাঠের দখল নিয়ে তুল্যমূল্য লড়াই চলে ইরান এবং ওয়েল্‌সের মধ্যে। দুই অর্ধ মিলিয়ে বলের দখল বেশি ছিল ওয়েল্‌সের। কিন্তু গোল করার মতো পরিস্থিত তৈরি করতে একপ্রকার ব্যর্থ হন বেলরা। অপরদিকে ধাপে ধাপে বল দখলের হার বাড়াতে থাকে ইরান। ইরান মাঝমাঠে সৃষ্টিশীল ফুটবল খেলার চেষ্টা করেন। এদিন ম্যাচের ১৭ মিনিট নাগাদ ওয়েল্‌সের জালে বল জড়ান আলি ঘোলিজাদেহ্‌, কিন্তু অফসাইডের জন্য গোল বাতিল হয়। তার মিনিট পাঁচেক আগে কিফার মুরের হেড ঠেকিয়ে দলের পতন রোধ করেন ইরানের গোলরক্ষক হোসেন হোসেইনি। প্রথমার্ধের খেলা গোল শূন্য অবস্থায় শেষ হয়। 

দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকেই জয়ের জন্য ঝাঁপায় ইরান। সর্দার আজমৌনের হেড বারপোস্টে লেগে প্রতিহত হয়। ফিরতি বলে শট নেন ঘোলিজাদে্‌হ, এবং সেটিও পোস্টে লেগে প্রতিহত হয়। ৭৩ মিনিটের মাথায় সাইদ এজাতোলাহি’র গড়ানো শট কোনওরকমে বাঁচান ওয়েল্‌সের গোলরক্ষক ওয়েন হেনেসি। 

খেলার মোড় সম্পূর্ণ ভাবে ঘুরে যায় ৮৫ মিনিট নাগাদ। মাঝমাঠের কাছাকাছি মেহেদি তারেমি’কে ফাউল করেন হেনেসি। রেফারি প্রথমে হলুদ কার্ড দেখালেও, ভিএআর প্রযুক্তির সাহায্য সিদ্ধান্ত বদল করেন তিনি। সরাসরি লাল কার্ড দেখে মাঠের বাইরে চলে যেতে হয় হেনেসিকে। 

এরপর থেকে ম্যাচ নিয়ন্ত্রণ করতে শুরু করে ইরান। ওয়েল্‌স বক্সে একের পর এক আক্রমণ আছড়ে পড়তে শুরু করে। অতিরিক্ত সময়ের ৮ মিনিটের মাথায় দলকে এগিয়ে দেন রুজবে চেশমি। বক্সের বাইরে থেকে নেওয়া চেশমির দূরপাল্লার শট গোটা ডিফেন্স লাইন এবং গোল রক্ষকের নাগাল এড়িয়ে জালে জড়িয়ে যায়। এর ২ মিনিট পরে দলের ব্যবধান বাড়ান রামিন রাজাইয়ান। 

এবারের ফুটবল বিশ্বকাপে দারুণ ফুটবল উপহার দিয়ে চলেছে এশিয়ার দলগুলি। আর্জেন্টিনা এবং জার্মানিকে হারিয়ে ইতিমধ্যেই ইতিহাসের পাতায় নিজেদের নাম খোদাই করে ফেলেছে সৌদি আরব এবং জাপান। সেই তালিকায় এবার ঢুকে পড়ল জামশিদ নাসিরি, মজিদ বাসকারের দেশও। এবারের বিশ্বকাপ যেন সোচ্চারে জানান দিচ্ছে -  ‘এশিয়ান ফুটবল হ্যাজ কাম অ্যা লং ওয়ে’, লাতিন বিশ্ব কিংবা ইউরোপের কোনও দেশকে আর ডরায় না এশিয়া। সাধে কি আর বলে, ‘ফুটবল ইজ অ্যা গ্রেট লেভেলার’! 

 

 

0 Comments

Login to leave a comment